অমুসলিমকে সম্ভাষণ করার পদ্ধতি ৷ আদাব ও নমস্কার বলার বিধান ৷

প্রশ্ন
মুফতী সাহেব! আমাদের স্কুল, কলেজ লাইফের অনেক হিন্দু টিচার আছে ৷ তাদের সাথে সাক্ষাৎ হলে আদাব বলে সম্ভাষণ করি ৷ আবার অনেকে নমস্কার বলে সম্ভাষণ করে ৷ যেহেতু আমরা মুসলিমরা সালামের মাধ্যমে সম্ভাষণ জানাই ৷ তাদের ক্ষেত্রে তো সালাম দিতে পারি না ৷ তাই জানার বিষয় হলো, হিন্দু টিচারদের কে আদাব, নমস্কার বলে সম্ভাষণ করা যাবে কিনা? যদি জায়েয না হয় তাহলে দেখা হলে কিভাবে কুশলবিনিময় করব ? এবং তাদেরকে সালাম দেয়ার বিধান কি? জানিয়ে বাধিত করবেন ৷
উত্তর
অমুসলিমদের সাথে উঠা বসা এবং লেনদেনের ক্ষেত্রে ইসলামের সুুনির্দিষ্ট নীতিমালা রয়েছে । তাদের নীতিমালা মুসলমানদের জন্য গ্রহন করা বৈধ নয় ৷ অতএব হিন্দু টিচারদের সাথে সাক্ষাৎ হলে আদাব, নমস্কার ইত্যাদি বলে তাদেরকে সম্ভাষন করা যাবে না ৷ আদাব শব্দের শাব্দিক অর্থ বিবেচনায় যদিও একটু সুযোগ আছে, কিন্তু কোন ভাবেই তাকে নমস্কার বা
নমস্তে বলা যাবে না। তাদের সাথে সাক্ষাৎ হলে সৌজন্য প্রদর্শন হিসেবে তার কুশলাদি জিজ্ঞাসা করে বা অন্য কোনভাবে যেমন হাতের দ্বারা ইশারা করে কুশলবিনিময় করবে ।
কোন বিধর্মীর সাথে সাক্ষাৎ হলে তাকে সালাম দেওয়াও বৈধ নয় । সালাম শুধু এক মুসলমান আরেক মুসলমানকেই দিতে পারে। তবে যদি সে আগে সালাম দিয়ে ফেলে, উত্তরে ‘ওয়া আলাইকুম’ বা ইয়াহদীকুমুল্লাহ’ অথবা “আসসালামু আলা মানিত্তাবাআল হুদা’ বলবে।
-সহীহ বোখারী শরীফ, হাদীস: ৬২৫৮; সহীহ মুসলিম শরীফ, হাদীস: ২১৬৭; রদ্দুল মুহতার ৯/৫২৭; রহীমীয়া,৬/১২৬ কিফায়াতুল মুফতী ৯/১০৬ ৷
মুফতী মেরাজ তাহসীন মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম ব্রাক্ষণবাড়িয়া ৷

উত্তর দিয়েছেন : মুফতি মেরাজ তাহসিন

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Pin It on Pinterest