আমাদের ফ্যাক্টরির ভেতরই কর্মচারীদের থাকার ব্যবস্থা আছে। মুরগীর জন্য মহাক্ষতিকর…

প্রশ্ন

আমাদের ফ্যাক্টরির ভেতরই কর্মচারীদের থাকার ব্যবস্থা আছে। মুরগীর জন্য মহাক্ষতিকর ভাইরাসজনিত সমস্যার কারণে কর্মচারীদের বাইরে যাওয়া নিষেধ থাকে। ফলে সকলেই পাঁচ ওয়াক্ত নামায ফ্যাক্টরির ওয়াক্তিয়া নামায ঘরেই আদায় করে থাকে। একই সমস্যার কারণে তাদেরকে জুমআর জন্যও বাইরের মসজিদে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় না। এখন তাদের জন্য ফ্যাক্টরির ওয়াক্তিয়া নামায ঘরে জুমআ পড়া জায়েয হবে কি না? না কি যোহর পড়তে হবে। নামায ঘরটি ওয়াকফিয়া মসজিদ নয়। অনেকের ধারণা, জুমআ আদায়ের জন্য জামে মসজিদে যেতে হবে। শুধু মসজিদ হলেও চলবে না। এটা ঠিক কি না?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত কারণে কর্মচারী ও ফ্যাক্টরির অভ্যন্তরে অবস্থানকারী অন্যান্য মুসল্লিদের জন্য উক্ত নামায ঘরে জুমআ আদায় করা সহীহ হবে। জুমআর জন্য ওয়াকফিয়া মসজিদ হওয়া শর্ত নয়। তদ্রূপ জামে মসজিদ হওয়াও শর্ত নয়। তবে নিয়ম হল, যে কোনো ফরয নামাযই ওয়াকফকৃত শরয়ী মসজিদে জামাতের সাথে আদায় করা। তদ্রূপ জুমআর ক্ষেত্রেও সাধারণ নিয়ম হল, ছোট ছোট জামাত না করে একত্রে এলাকার বড় কোনো জামে মসজিদে আদায় করা।

উল্লেখ্য, ফ্যাক্টরির অভ্যন্তরে জুমআ পড়ার সুযোগ থাকা সত্ত্বেও জুমআ না পড়ে যোহর পড়া জায়েয হবে না। কারণ যে জায়গার জন্য জুমআর বিধান প্রযোজ্য সেখানে মুকীমদের জন্য জুমআ পড়া ফরয। বিনা ওযরে জুমআ না পড়ে যোহর পড়া বৈধ নয়।

-সহীহ বুখারী ১/৪৭; ফাতহুল বারী ১/৫৭১; আলবাহরুর রায়েক ২/১৫১; রদ্দুল মুহতার ২/১৫২; মিনহাতুল খালিক ২/১৫১; ফাতাওয়া উসমানী ১/৫৭৬

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.