porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

আল্লামা মুফতি মুজাফ্ফর আহমদ রহ.

জন্ম:
আল্লামা মুফতি মুজাফ্ফর আহমদ রহ. ১৯৪০ ইং সনে কক্সবাজার মহেশখালী থানার এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম হাজী মু. জহির উদ্দীন।

লেখা পড়া:
পারিবারিক দ্বীনি পরিবেশে তিনি ছোটবেলায় গৃহশিক্ষকের নিকট প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন করেন।জামাতে নাহবেমীর পর্যন্ত তিনি মহেশখালী থানার অন্তর্গত জামিয়া আরবিয়া গোরকঘাটায় অধ্যয়ন করেন।
অতঃপর জামাতে হেদায়াতুন্নাহু এবং কাফিয়া আশরাফুল উলুম ঝাপুয়া মাদ্রাসায় অধ্যয়ন করেন।শরহেজামী জামাত থেকে দাওরায়ে হাদীস অতঃপর ফুনুনাতে আলিয়া জামিয়া ইসলামিয়া পটিয়ায় সমাপ্ত করেন।ঈর্ষণীয় মেধা ও স্মরণশক্তির অধিকারী আল্লামা মুফতি মুজাফ্ফর আহমদ সাহেব প্রতিটি ক্লাসে কৃতিত্বের পরিচয় দিয়েছেন।তার প্রতি আকাবিরদের স্নেহ, মায়া,ভালবাসা ও সুনজর ছিল।জামিয়ার প্রতিষ্টাতা পরিচালক হযরত মুফতি আজিজুল হক রহ.এর নিকট তাঁর অনেক কিতাব পড়ার সৌভাগ্য হয়েছে।

অধ্যাপনা:
স্বভাবগত প্রচারবিমুখ এই বিদগ্ধ আলেমে দ্বীন কর্মজীবন শুরু করেন সৈয়দপুরের একটি মাদ্রাসায় অধ্যাপনার মাধ্যমে।অতঃপর বগুড়া জামিল মাদ্রাসায় দু’বছর অধ্যাপনা করেন।জামিল মমাদ্রাসা থেকে এসে তিনি যথাক্রমে মাতারবাড়ি আজিজিয়া মাদ্রাসায় দু’বছর এবং ঝাপুয়া মাদ্রাসায় আটবছর অধ্যাপনা করেন।
১৯৭৫ সাল হতে তিনি মুরব্বিদের নির্দেশে সাড়া দিয়ে জামিয়া পটিয়ায় শিক্ষকতা শুরু করেন।তখন থেকে আজ পর্যন্ত তিনি জামিয়ার একজন খ্যাতিমান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
দ্বীর্ঘ সাত বছর তিনি জামিয়ার সহকারী শিক্ষা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।কয়েক বছর তিনি নাজেমে দারুল ইক্বামা ছিলেন।কয়েক বছর খ-কালীন ভারপ্রাপ্ত পরিচালকও ছিলেন।
তিনি জামিয়ার সিনিয়র মুহাদ্দিস ও ফতোয়া বিভাগের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করে আসছে প্রায় তিন যুগধরে।
তিনি দুই একটি ব্যতিত দরসে নেজামীর প্রায় প্রতিটি কিতাবই দরস দিয়েছিলেন।

উনি মুত্যুর আগ পর্যন্ত ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান, এবং অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীরের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

আধ্যািত্বকতা:
আল্লামা মুফতি মুজাফ্ফর আহমদ রহ. ছাত্রজীবণ থেকে আধ্যাত্বিক জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র কুতুবে জামান হযরত মুফতি আজিজুল হক সাহেব রহ. এর স্নেহ,মায়া ওরূহানী ছত্র-ছায়ায় বেডে উঠেন।মুফতি সােহবের মৃত্যু পর শায়খুল আরব ওয়াল আজম শাহ ইউনুস রহ. এর কাছে নিজেকে অর্পন করেন। তাদেরই পদাঙ্ক অনুসরণ করে তিনি জীবণ কাটিয়েছেন।

মৃত্যু:
০২/০৫/২০১৭ ইং সনে তিনি ইহকাল ত্যাগ করে মাওলার সান্নিধ্য লাভ করেন।
আল্লাহ হুজুর কে জন্নাতুল ফেরদাউস নসীব করুন। আমীন।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri