আসর নামাযে উচ্চস্বরে কেরাত পড়া ও সিজদায়ে তিলাওয়াতের পর সূরা ফাতেহা পড়ে ফেলা

প্রশ্ন
হযরত একটু যদি জানাতেন…..
উত্তর
১ নং প্রশ্নঃ
ইমাম সাহেব যদি অাসরের নামাজে সূরা ফাতিহা জেহের শুরু করেন এবং দু তিন অায়াত পড়ে ফেলেন অতপর মুক্তাদি লোকমা দিলে সিররি শুরু করেন তাহলে হুকুম কি?
যদি সাজদায়ে সাহু করেন তাহলে কি হুকুম? ২ নং প্রশ্নঃ
তারাবির নামাজে সিজদায়ে তেলায়াতের পর যদি সূরা ফাতিহা পড়ে তাহলে হুকুম কি?
অার শুরু করার পর মাঝখানে মনে অাসলে হুকুম কি?
যদি দ্রুত জানাতেন খুব ভালো হত!!
( এ বিষয়ে অামাদের মসজিদে তুমুল বিতর্ক চলছে )
১নং উত্তরঃ
প্রশ্নে বর্নিত সূরতে ইমাম সাহেব আসরের নামাযে সূরা ফাতেহার দু আয়াত পড়েছেন নাকি তিন আয়াত পড়েছেন তা নিশ্চিত করুন ৷ যদি তিন আয়াত বা তার চেয়ে বেশি উচ্চস্বরে পড়ে থাকেন তাহলে সাহু সেজদা আবশ্যক হয়েছে ৷ যদি সাহু সেজদা দিয়ে থাকেন তাহলে নামায হয়েছে নতুবা নামায হয়নি, উক্ত নামায পুনরায় পড়তে হবে ৷ আর যদি তিন আয়াতের চেয়ে কম পড়ে থাকেন তাহলে সাহু সেজদা আবশ্যক হয় নি ৷ সাহু সেজদা ব্যতিত-ই নামায হয়ে যাবে৷
-সহীহ মুসলিম, হাদীস ৪৫১; ইলাউস সুনান ৭/১৯১; রদ্দুল মুহতার ২/৮২ ৷
২নং উত্তরঃ
সূরা ফাতিহার সাথে অন্য সূরা বা ছোট তিন আয়াত পরিমান মিলানোর পর ভুলে আবার সূরা ফাতিহা পড়লে সাহু সিজদা ওয়াজিব হয় না। তবে সূরা মিলানোর আগেই পর পর দুবার সূরা ফাতিহা পড়ে ফেললে সাহু সিজদা ওয়াজিব হয়। প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে যেহেতু সুরা মিলানোর পর সূরা ফাতেহা পড়েছে তাই সাহু সেজদা আবশ্যক হয়নি ৷ যখনি স্বরন হবে তখনি নিজ কেরাত থেকে পড়া শুরু করবে ৷
-ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ২/৩৯১; শরহুল মুনইয়াহ ৪৬০; আলবাহরুর রায়েক ২/৯৪; তাবয়ীনুল হাকায়েক ১/৪৭৩৷
উত্তর প্রদানে মুফতী মেরাজ তাহসীন মুফতীঃ জামিয়া দারুল উলুম দেবগ্রাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৷

উত্তর দিয়েছেন : মুফতি মেরাজ তাহসিন

Pin It on Pinterest