একমাত্র মুনাফিকরাই তাবলীগ জামাতের বিরুধীতা করে

মানুষের বিবেক আজ কোথায় , যারা আল্লাহর
হুকুম মানে না , নবীর সুন্নত মানে না , তাদের বিরুদ্ধে কোন প্রতিবাদ নাই , শুধু প্রতিবাদ হিংসা , মিথ্যা অপবাদ , চুলকানী দাওয়াত ও তাবলীগের বিরুদ্ধে ৷

হায়রে- মুসলমান একজন যুবক যখন সারা দিন
আড্ডা গল্প-গুজব নাচ-গান খেলা-ধুলা বিভিন্ন গুনাহের কাজে নিজেকে জড়িত রাখে , তখন এই বিষয় নিয়ে কার কোন মাথা ব্যাথা নাই , প্রবলেম নাই ৷

আর যখন ছেলেটি গুনাহ ছেড়ে তিন দিনের জন্য
মসজিদ গুনাহ মুক্ত থাকে , তখনই কিছু লোকের
চুলকানী শুরু হয় ৷

আবার , যখন ছেলেটি আল্লাহর রাস্তা চল্লিশ দিন
অথবা তিন চিল্লা দিয়ে নিজের ঈমান ও আমল ঠিক করে এবং যখন দ্বীনের বুঝ পায় ৷ তখন যেই ছেলেটি আগে কখনও নিজেকে নিয়েও ভাবেনি , এখন সেইসমস্ত উম্মতকে নিয়ে ভাবে ৷

এখন আর সেই গুনাহ করে না , নিজে নামজ পড়ে , মানুষকেও নামাজের দাওয়াত দেয় ৷ নিজে এখন খারাপ কাজ করে না , মানুষকেও না করার জন্য বলে ৷ তখনই কিছু লোকের চুলকানী শুরু হয় , কিন্তু কেন ??

এখানে একটি বিষয় স্পষ্ট বুঝ যায় , আর তা-হলো যাদের চুলকানী উঠে , তারা মনে হয় এই যুবকের ভাল চায় না ৷ তারা চায় না যুবকটি দ্বীনদার ও নামাজি হয়ে যাক এবং গুনাহ থেকে বেঁচে থাকুক ৷

যদি চাইতো তাহলে তারা কোন দিন তাবলীগের বিরুধীতা করতো না ৷

মহান আল্লাহ পাক সবাইকে দ্বীনের সঠিক বুঝ দান করুক এবং আমাদেরকেও দ্বীনের খাঁটি দাঈ হিসাবে কবুল করেন ………… আমীন ৷

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.