ক) …।খ) ফিকহের কিতাবে বহু স্থানে বাইয়ে সরফ শিরোনামে অনেক…

প্রশ্ন

ক) …।

খ) ফিকহের কিতাবে বহু স্থানে বাইয়ে সরফ শিরোনামে অনেক আলোচনা আছে। যেমন বলা হয়েছে, স্বর্ণের সাথে স্বর্ণের এবং রূপার সাথে রূপার বিনিময় করতে চাইলে বেশকম করা জায়েয নেই। অর্থাৎ ক্রয়বিক্রয় করতে চাইলে সমান সামন ছাড়া অতিরিক্ত দেওয়া হারাম হবে। সেটা সুদের অন্তর্ভুক্ত হবে। এখান থেকে প্রশ্ন জাগে যে, আমাদের দেশের টাকা যেহেতু কাগজের, স্বর্ণ বা রূপার নয় তাহলে আমরা যে নষ্ট বা ছেঁড়া-ফাটা টাকা নতুন চকচকে টাকা দিয়ে পরিবর্তন করি অথচ ছেঁড়া ২০ টাকা দিলে ভালো ১৫ টাকা দেওয়া হয় অর্থাৎ সমান সমান হওয়ার যে হুকুম কিতাবে বলা হয়েছে তা ঠিক থাকে না। তাহলে আমাদের এ পদ্ধতি কি সুদের অন্তর্ভুক্ত হবে? বিস্তারিত জানিয়ে সমস্যার সঠিক সমাধান দিলে সম্মানির হুজুরের কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকব।

উত্তর

ক) আপনার প্রশ্নটি অস্পষ্ট। এতে কোম্পানির কারবারের বিস্তারিত বিবরণ উল্লেখ করা হয়নি। তাই আপনি মাসআলাটি সরাসরি বা ফোনে জেনে নিন। নতুবা পুনরায় স্পষ্ট করে প্রশ্ন লিখুন।

খ) হ্যাঁ, এক দেশীয় মুদ্রার পরস্পর লেনদেনের ক্ষেত্রেও কমবেশি করা নাজায়েয এবং সুদের অন্তর্ভুক্ত। সুতরাং দেশীয় ছেঁড়া বা পুরাতন টাকা দিয়ে নতুন টাকা কমবেশি করে আদানপ্রদান করা নাজায়েয। কারণ বর্তমানে কাগজি নোটগুলোই আদানপ্রদানের মাধ্যম হিসেবে স্বর্ণ-রূপার মুদ্রার স্থান দখল করে নিয়েছে।

উল্লেখ্য যে, ছেঁড়া-ফাটা নোট যদি চালানো সম্ভব না হয় তাহলে ব্যাংকের মাধ্যমে পরিবর্তন করে নিবে।

-বুহুস ফী কাযায়া ফিকহিয়্যাহ মুআসিরা ১/১৬৪-১৬৬; ফিকহুন নাওয়াযিল ৩/২২; আততাযাখখুমুন নকদী ফিলফিকহিল ইসলামী ৭৩; মাজাল্লাহ মাজমাউল ফিকহিল ইসলামী ৩/১৯৬৫

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.