বদরী সাহাবীদের নাম

বদরী সাহাবীদের নাম

আরবী বংমািলা অনুযায়ী
আলিফ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

১ উবাই ইবন কাআব আন-নাজ্জারী ৷ ইনি ছিলেন সায়িদুেল কুবৃর৷ অর্থাৎ–প্রধান কুরআন
বিশেষজ্ঞ ৷

২ আরকাম ইবন আবুল আরকাম ৷ আবুল আরকামের আসল নাম আবদে মানাফ (ইবন
আসাদ ইবন আবদুল্লাহ ইবন উমর ইবন মাযুয়ম) আল-মাখয়ুমী ৷

৩ আসআদ ইবন ইয়াযীদ ইবন ফড়াকিহ্ ইবন ইয়াযীদ ইবন খালদা ইবন আমির ইবন
আজলান ৷

৪ আসওয়াদ ইবন যায়দ ইবন ছালাব৷ ইবন উবায়দ ইবন ণ্া৷নাম ৷ এ হচ্ছে মুসা ইবন
উক্বার অভিমত ৷ কিন্ত উমাবী এ নামে সন্দেহ করে বলেছেন, তার নাম সাওয়াদ ইবন
রুযাম ইবন ছালাবা ইবন উবায়দ ইবন আদী ৷ এ দিকে ইবন ইসহাকের উদ্ধৃতি দিয়ে
ৰুসালামা ইবন ফাযল এ ব্যক্তির নাম বলেছেন সাওয়াদ ইবন যুরায়ক ইবন ছালাবা ৷
আর ইবন আইয এ লোকের নাম বলেছেন-সাও য়াদ ইবন যায়দ ৷

৫ উসায়র ইবন আমর আ নসা ৷রী আ বু সালীত ৷ কারও মতে উসায়র ইবন আমর ইবন উমাইয়৷
ইবন লাওযান ইবন সালিম ইবন ছাবিত খাযরাজী ৷ অবশ্য মুসা ইবন উকবা বদরী
সাহাবীগণের মধ্যে এ নাম উল্লেখ করেননি ৷

৬ আনড়াস ইবন কড়া তাদ৷ ইবন রাবীআ ইবন খালিদ ইবন হারিছ আল আওসী ৷ মুসা ইবন
উকবা এ নাম এ ভাবে বলেছেন ৷ বিভু উমাৰী তার সীরাত গ্রন্থে আনাস’ এর স্থলে
উনায়স বলেছেন ৷

ইবন কাহীর বলেন : রাসুলুল্লাহ্ (না)-এর খাদিম আনাস ইবন মালিক প্ৰসংগে উমর ইবন
শাবাতা নুমায়রী ছুমামা ইবন আনাস সুত্রে বর্ণনা করেন ৷ তিনি বলেন, আনাস ইবন
মালিককে জিজ্ঞেস করা হল, আপনি কি বদর যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন ? জবাবে তিনি

বললেন, বদরে না গিয়ে আমি কোথায় থাকবাে অকল্যাণ হোক তোমার ! মুহাম্মাদ ইবন সাআদ
আনাস ইবন মালিকের আযাদকৃত গোলাম সুত্রে বর্ণিত ৷ তিনি আনাস ইবন মালিককে
জিজ্ঞেস করেন : আপনি কি বদরের যুদ্ধে উপস্থিত ছিলেন , ? তিনি বললেন, তোমার অকল্যাণ
হোক, বদরের যুদ্ধ থেকে কোথায় আমি অনুপস্থিত ছিলাম ? মুহাম্মাদ ইবন আবদুল্লাহ্ আনসারী
বলেন০ ং আনাস ইবন মালিক রাসুলুল্লাহ্ (সা) এর সাথে বদর যুদ্ধে গিয়েছিলেন ৷ বয়সে তিনি
ছোট ছিলেন ৷৩ তাই রাসুলুল্লাহ্র খিদমতে নিয়োজিত থাকতেন ৷ শায়খ হাফিজ আবুল হ জ্জাজ
আল-মিযযী তার তাহযীব গ্রন্থে বলেনং : আনসড়ারী এরুপ বলেছেন, কিভ্ অন্য কোন মাগাযী
লেখক এটা উল্লেখ করেননি ৷

৭ আনাস ইবন ঘুআয ইবন আনাস ইবন কায়স ইবন উবায়দ ইবন যায়দ ইবন মুআবিয়া
ইবন আমর ইবন মালিক ইবন নাজ্জার ৷

৮ উনসাতুল হাবাশী ইনি রাসুলুল্লাহ্ (না)-এর আযাদকৃত দাস ৷
৯; আওস ইবন ছাবিত ইবন মুনযির নাজ্জারী ৷
১ : আওস ইবন খাওলা ইবন আবদুল্লাহ ইবন হড়ারিছ ইবন উবায়দ ইবন মালিক ইবন সালিম

ইবন গানাম ইবন আওফ ইবন খাযরাজ আল-খাযরাজী ৷ মুসা ইবন উকবা এ স্থলে
বলেছেন : আওস ইবন আবদুল্লাহ ইবন হড়ারিছ ইবন খাওলা ৷

১ ১ আওস ইবন সামিত আল-খাযরাজী উবাদা ইবন সামিতএর ভাই ৷

১ ২ ইয়াস ইবন বুকায়র ইবন আবদে ইয়ালীল ইবন নাশিব ইবন গাবারা ইবন সাআদ ইবন
লায়ছ ইবন বকর বনু আদী ইবন কাআব-এর মিত্র ৷

বা অড়াদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
১৩ বুজায়র ইবন আবু বুজায়র বনু নাজ্জারের মিত্র ৷

১৪ বাহাছ ইবন ছা’লাবা ইবন খুযামা ইবন আসরাম ইবন আমর ইবন আম্মারা আল-
বালাবী-আনসারীদের মিত্র ৷

১৫ বাসৃবাস ইবন আসর ইবন ছা’লাবা ইবন খারশা ইবন যায়দ ইবন আমর ইবন সাঈদ ইবন
যুবয়ান ইবন রুশদান ইবন কায়স ইবন জুহায়না আল-জ্বহড়ানী বনু সাইদার মিত্র ৷
মুসলিম বাহিনীর দু’জন গুপ্তচরের মধ্যে ইনি একজন ৷ অনজেন আদী ইবন
আবুর-রাগৃবা ৷

১৬ বিশর ইবন বারা’ ইবন মা’রুর আল-খাযরাজী ৷ ইনি থায়বারের যুদ্ধে বিষ মিশ্রিত গোশৃত
খেয়ে ইনতিকাল করেছিলেন ৷

১ ৭ বশীর ইবন সাআদ ইবন ছা’লাবা আল-থাযরাজী ৷ তার পুত্রের নাম নুমান ন্ বলা হয়,
হযরত আবু বকরের হাতে তিনিই সর্বপ্রথম বায়আত গ্রহণ করেন ৷

১৮ বশীর ইবন আবদুল মুনযির আবু লুবাবা আল-আওসী ৷ রাসুলুল্লাহ্ (সা) রাওয়াহা
নামক স্থান হতে তাকে মদীনায় একটা কাজের দায়িত্ব দিয়ে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ৷
এজন্য গনীমতের অংশ ও পুরস্কার র্তাকে দেয়া হয় ৷

তা’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

১৯ তামীম ইবন ইয়াআর ইবন কায়স ইবন আদী ইবন উমাইয়া ইবন জাদারা ইবন আওফ
ইবন হড়ারিছ ইবন খাযরাজ

২০ তামীম খারাশ ইবন সুম্মা’র আযাদকৃত দাস ৷

২১ তামীম বনু গনোম ইবন সালামের আযাদকৃত দাস ৷ কিন্তু ইবন হিশাম তাকে সাআদ
ইবন খায়ছামার আযাদকৃত দাস বলে উল্লেখ করেছেন ৷

ছা আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

২২ ছাবিত ইবন আকরাম ইবন ছালাবা ইবন আদী ইবন আজলান ৷

২৩ ছাবিত ইবন ছা’লাবা ৷ এই ছা’লাবার পরিচয়ে বলা হত- আল-জাদ ইবন যায়দ ইবন
হারিছ ইবন হারাম ইবন গানাম ইবন কাআব ইবন সালামা ৷

২৪ ছাবিত ইবন খালিদ ইবন নুমান ইবন খানসা ইবন আসীরা ইবন আব্দ ইবন আওফ
ইবন গনোম ইবন মালিক ইবন নাজ্জার আন-নাজ্জারী ৷

২৫ ছাবিত ইবন খানৃসা ইবন আমর ইবন মালিক ইবন আদী ইবন আমির ইবন পানাম ইবন
আদী ইবন নাজ্জার আন-নাজ্জারী ৷

২৬ ছাবিত ইবন আমর ইবন যায়দ ইবন আদী ইবন সাওয়াদ ইবন মালিক ইবন পানাম ইবন
আদী ইবন নাজ্জার আন নাজ্জারী ৷

২৭ ছাবিত ইবন হুযাল আল-খাযরাজী ৷

২৮ ছালাবা ইবন হাতির ইবন আমর ইবন উবায়দ ইবন উমাইয়া ইবন যায়দ ইবন মালিক
ইবন আওস ৷

২৯ ছালাবা ইবন আমর ইবন উবায়দ ইবন মালিক আন-নাজ্জারী ৷
৩০ ছালাবা ইবন আমর ইবন মিহ্সান আল-খাযরাজী ৷
৩১ ছালাবা ইবন আনামা ইবন আদী ইবন নাবী আস-সুলামী ৷

৩২ ছাকিফ ইবন আমর ৷ ইনি বনু হাজারের শাখা-গোত্র বনু সুলায়মের লোক ৷ আর তিনি
হচ্ছেন বনু কাহীর ইবন গানাম ইবন দুদান ইবন আসাদ গোত্রের মিত্র ৷

জীম আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

(৩৩) জাবির ইবন খালিদ ইবন মাসউদ ইবন আবদুল আশহাল ইবন হারিছা ইবন দীনার
ইবন নাজ্জার আন-নাজ্জারী ৷

(৩৪) জাবির ইবন আবদুল্লাহ্ ইবন রিছাব ইবন নুমান ইবন সিনান ইবন উবায়দ ইবন আদী
ইবন পানাম ইবন কাআব ইবন সালামা আস-সুলামী ৷ ইনি ছিলেন আকাবার
শপথকারীদের অন্যতম ৷

ইবন কাহীর বলেন : জাবির ইবন আবদুল্লাহ্ ইবন আমর ইবন হারাম সুলামীও একজন
বদরী সাহাবী ৷ ইমাম বুখারী র্তাকে বদরী সাহাবীগণের মধ্যে উল্লেখ করেছেন ৷ তিনি সাঈদ
ইবন মানসুর সুত্রে আবু মুআবিয়া, আমাশ, আবু সুফিয়ান, জাবির থেকে বর্ণনা করেন ৷ জাবির
বলেন : বদর যুদ্ধে আমি আমার সংগীদের মধ্যে পানি সরবরাহের কাজে নিয়োজিত ছিলাম ৷
হাদীছের এ সনদটি মুসলিমের শর্ত পুরণ করে ৷ কিন্তু মুহাম্মদ ইবন সাআদ বলেন : এ হাদীছটি
আমি মুহাম্মদ ইবন উমর অর্থাৎ ওয়াকিদীর নিকট পেশ করলে তিনি বলেন, এটা ইরাকবাসীদের
একটা ভুল ধারণা ৷ ন্ তিনি জাবিরকে বদরী সাহাবী রুপে মেনে নিতে অস্বীকার করেন ৷ ইমাম

আহমদ ইবন হাম্বল রাওহ্ ইবন উবাদা সুত্রে জাবির ইবন আবদুল্লাহ্ থেকে বর্ণনা করেন ৷
তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লড়াহ্ (না)-এর সাথে উনিশটি যুদ্ধে অংশগ্রহণ করি ৷ তবে বদর ও
উহুদ যুদ্ধে আমি অংশগ্রহণ করিনি ৷ আমার পিতা আমাকে এ দু’টি যুদ্ধে যেতে বারণ
করেছিলেন ৷ উহুদ যুদ্ধে আমার পিতা শাহাদাত বরণ করলে এর পরবর্তী কোন যুদ্ধে আমি
অনুপস্থিত থাকিনি ৷ এ হাদীছটি ইমাম মুসলিম আবু খড়ায়ছামা-, রওহ্ সুত্রে বর্ণনা করেছেন ৷

৩৫ জাব্বার ইবন সাখর আস-সুলামী ৷
৩৬ জাবর ইবন আভীক আনসারী ৷
৬৭ জুবায়র ইবন ইয়াস আল-খাযরড়াজী ৷

হা’ অদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
৩৮ হারিছ ইবন আনাস ইবন রাফি আল-খাযরড়াব্জী ৷
৩৯ হারিছ ইবন আওস ইবন মুআয ইবন আখী সাআদ ইবন মুঅব্যে আল-আওসী ৷

৪ : হারিছ ইবন হাতির ইবন আমর ইবন উবায়দ ইবন উমাইয়া ইবন যায়দ ইবন মালিক
ইবন আওস ৷ রাসুলুল্লাহ্ (না) তাকে পথ থেকে ফিরিয়ে দেন ৷ অবশ্য গনীমতের অং শ
ও পুরস্কা র তাকে দান করেন ৷

৪ ১ হারিছ ইবন খাযরমা ইবন আদী ইবন আবী পানাম ইবন সালিম ইবন আওফ ইবন আমর
ইবন আওফ ইবন খাযরাজ বনী যাউর ইবন আবদুল আশহাল-এর মিত্র ৷

৪২ হারিছ ইবন সাম্ম৷ আল-খাযরাজী ৷ যাত্রাপথে তার পা ভেঙ্গে যাওয়ায় রাসুলুল্লাহ্ (সা)
র্তাকে ফেরত পাঠিয়ে দেন ৷ তবে গনীমতের ভাগ ও যুদ্ধের পুরস্কার র্তাকে দেয়া হয় ৷

৪৩ হারিছ ইবন আরফাজা আল-আওসী ৷
৪ : হারিছ ইবন কায়স ইবন খালদা আবু খালিদ আল-খাযরাজী ৷
৪ ৫ হারিছ ইবন নু’মান ইবন উমাইয়া আনসারী ৷

৪৬ হারিছা ইবন সুরাকা আন-নাজ্জারী ৷ যুদ্ধের ময়দানে তিনি পর্যবেক্ষকের দায়িতু পালন
কালে হঠাৎ শত্রুদের বিক্ষিপ্ত ভীরের আঘাতে জান্নাতবাসী হন ৷

৪ ৭ হারিছা ইবন নুমান ইবন রাফি আনসারী ৷

৪৮ হাতির ইবন আবু বালতা আল-লাখড়ামী তিনি বনু আসাদ ইবন আবদুল উঘৃযা ইবন
কুসাই এর মিত্র ছিলেন ৷

৪ ৯ হাতির ইবন আমর ইবন উবায়দ ইবন উমাইয়া আল-আশজাঈ ৷ আশজাঈ বনু দাহমানের
শাখাগাে ৷ত্র ৷ ইবন ইসহাক ব্যতীত অন্যদের থেকে ইবন হিা৷ম এরুপই বর্ণনা করেছেন ৷
কিন্ত ওয়াকিদী তার নাম বলেছেন৪ হাতির ইবন আমর ইবন আবদে শাম্স ইবন
আবদুদ ৷ ইবন আ ৷ইয তার মাপাযী গ্রন্থে এ ভাবেই বর্ণনা করেছেন ৷ ইবন আবু হড়াতিম

বলেনং আমি আমার পিতার কাছে শুনেছি যে, হাতির ইবন আমর ইবন আবদে শামৃস
একজ্যা অজ্ঞাত পরিচয় লোক ৷

৫০ হুবড়াব ইবন ষুনযির আল খাযরাজী ৷ কথিত আছে যে বদর যুদ্ধে খাযরাজ গোত্রের ঝাণ্ডা
তারই হাতে ছিল ৷

৫১ হাবীব ইবন আসওয়াদ ইনি বনু সালামা গোত্রের শাখা বনু হারাম এর আযাদকৃত
গোলাম ছিলেন ৷ মুসা ইবন উকবা হাবীব ইবন আসওয়াদ এর পরিবর্তে হাবীব ইবন
সাআদ বলেছেন ৷ ইবন আবু হাতিম লিখেছেন, হাবীব ইবন আসলড়াম বদরী সাহাবী

যিনি আলে জুশাম ইবন খাযরাজ আনসারীর আযাদকৃত দাস ৷

৫২ হুরাইছ ইবন যায়দ ইবন ছা’লাৰা ইবন আবদে রাব্বিহী আনসারী ৷ যিনি আবদুল্পাহ্ ইবন
যায়দ-এর ভইি ৷ যে আবদুল্লাহ্ ইবন যায়দ আধান-এর শব্দমলো স্বপ্নে দেখেছিলেন ৷

৫৩ হুসইিন ইবন হারিছ ইবন যুত্তালিব ইবন আবদে মানাফ ৷
৫৪ হামযা ইবন আবদুল মুত্তালিব ইবন হাশিম রাসুলুল্লাহ্ (সা) এর চাচা ৷

খা আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
৫৫ খালিদ ইবন বুকায়র ইয়ান ইবন বুকায়র-এর ভাই ৷
৫৬ খালিদ ইবন যায়দ আবু আইয়ুব নাজ্জারী ৷১
৫ণ্৭ খালিদ ইবন কায়স ইবন মালিক ইবন আজলান আনসারী ৷

৫৮ খারিজা ইবন হুমায়র ৷ খাযরাজ গোত্রের বনু খানসার মিত্র ৷ কেউ কেউ বলেছেন, তার
নাম ছিল হারিছা ইবন হুমায়র ৷ ইবন অইিয তার নাম বলেছেন খারিজা ৷

৫৯ খারিজা ইবন যায়দ আল-খাযরাজী ৷ হযরত আবু বকর সিদ্দীক এর শ্বশুর ৷

৬ খাব্বাব ইবন আরত বনু যােহরার মিত্র ৷ তিনি হিজরতের সুচনা লগ্নে মুহড়াজির ৷ তার
মুল নসব বনু তামীম মতান্তরে খুযাআ ৷

৬ ১ খাব্বাব যিনি উতবা ইবন পাযওয়ান-এর আযাদকৃত দাস এবং প্রথম দিকের যুহাজির ৷
৬২ খারাশ ইবন সাম্মা সুলামী ৷
৬৩ খুবায়ব ইবন অড়াসাফ ইবন উভ্বা আল-খাযরাজী ৷

৬৪ খুরায়ম ইবন ফাতিক ৷ ইমাম বুখা ৷রী তীকে বদরী সাহাবী বলে উল্লেখ করেছেন ৷

৬৫ খলীফা ইবন আদী আল-থাযরাজী ৷

৬৬ থুলায়দ ইবন কায়স ইবন নুমান ইবন সিনান ইবন উবায়দ আল-আনসারী আস-সুলামী ৷
৬ ৭ থুনায়স ইবন হুযাফা ইবন কায়স ইবন আদী ইবন সাআদ ইবন সাহ্ম ইবন আমর ইবন

১ ইনিই সেই সৌভাগ্যবান সাহাবী হিজরতের পর সর্বপ্রথম নবী করীম (সা) যার বাড়ীতে অবস্থান
করেছিলেন ৷

হাসীস ইবন কাআব ইবন লুওয়াই অড়াস-সাহ্যী ৷ তিনি ছিলেন হযরত উমর ইবন
খাত্তাবের কন্যা হাফ্সার স্বামী ৷ বদর যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

৬৮ খাওয়াত ইবন জুবায়র আল-আনসারী ৷ তিনি স্বয়ং যুদ্ধে গমন করেননি ৷ তবু র্তাকে
গনীমত ও যুদ্ধে অংশ্যাহণকারীর পুরস্কার দেয়া হয় ৷

৬৯ খাওলা ইবন আবু খাওলা আল-আজালী ৷ বনু আদীর মিত্র এবং প্রথম দিকের মুহাজির ৷
৭০ খাল্লাদ ইবন রাফি ৷

৭ ১ খাল্লাদ ইবন সুওয়ায়দ ৷

৭২ খাল্পাদ ইবন আমর ইবন জামুহ্ আল-খাযরাজী ৷

যাল আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
৭৩ যাক্ওয়ান ইবন আবদে কায়স আলশ্খড়াযরাজী ৷

৭৪ যুশৃ-শিমালায়ন ইবন আব্দ ইবন আমর ইবন নড়াযলা ৷ তিনি ছিলেন ঘুসাআ গোত্রের
গড়াবশান ইবন সুলায়ম ইবন মালিকান ইবন আফসা ইবন হারিছা ইবন আমর ইবন
আমির শাখার লোক এবং বনী যুহরার মিত্র ৷ বদর যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷ ইবন হিশাম
বলেন, তার নাম ছিল উমায়র ৷ অতিশয় দরিদ্র হওয়ার কারণে তাকে যুশ-শিমালায়ন
বলা হত ৷

রা আদ্যক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

৭৫ রাফি ইবন হারিছ আল-আওসী ৷

৭৬ রাফি ইবন আনজাদা ৷ ইবন হিশাম বলেন, আনজাদা হচ্ছে রাফির মায়ের নাম ৷

৭ ৭ রাফি ইবন মুআল্লা ইবন লাওযান আল-খাযরাজী ৷ তিনি এ যুদ্ধে শহীদ হন ৷

৭৮ রিবঈ ইবন রাফি ইবনহারিছ ইবন যায়দ ইবন হারিছা ইবন জাদ ইবন আজলান ইবন
যাবীআ ৷ মুসা ইবন উক্বা বলেছেন রিবঈ ইবন আবু রাফি ৷

৭৯ রাবী ইবন ইয়াস আল-খাযরাজী ৷

৮০ রাবীআ ইবন আকছাম ইবন সাখবুরা ইবন আমর ইবন লাকীয ইবন আমির ইবন গানাম
ইবন দুদান ইবন আসাদ ইবন থুযায়মা বনু আবদে শামস ইবন আবদে মানাফএর
মিত্র ৷ তিনি ছিলেন প্রথম দিকের যুহাজির ৷

৮১ রাখীলা ইবন ছালাবা ইবন খালিদ ইবন ছা’লাবা ইবন আমির ইবন বায়াযা
আল-খড়াযরাজী ৷

৮২ রিফাআ ইবন রাফি আবৃ-যুরাকী -খাল্লাদ ইবন রাফির ভাই ৷
৮৩ রিফাআ ইবন আবদুল ঘুনযির ইবন যুনায়র আওসী আবু লুবাবার ভাই ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৫৫১

রিফাআ ইবন আমর ইবন যায়দ খাযরাজী ৷

যা’ অড়াদ্যাক্ষব বিশিষ্ট নামসমুহ
যুবায়র ইবন আওআম ইবন থুওয়ায়লিদ ইবন আসাদ ইবন আবদুল উয্যা ইবন কুসাই ৷
তিনি রাসুলুল্লাহ্ (না)-এর ফুফাত ভইি ও হাওয়ারী বা একান্ত ঘনিষ্ঠ সঙ্গী ৷

যিয়াদ ইবন অড়ামর ৷ মুসা ইবন উকবা বলেছেন, যিয়াদ ইবন আখরাস ইবন আমর
আল-জুহানী ৷ ওয়াকিদী বলেছেন, যিয়াদ ইবন কাআব ইবন ত্মামর ইবন আদী ইবন
রিফাআ ইবন কুলায়ব ইবন বুরযাআ ইবন আদী ইবন আমর ইবন যাবআরী ইবন
রুশদান ইবন কায়স ইবন জুহায়না ৷

যিয়াদ ইবন লাবীদ আয-যুরাকী ৷

যিয়াদ ইবন মাযীন ইবন কায়স আল-খাযরাজী ৷

যায়দ ইবন আসলাম ইবন ছালাবা ইবন আদী ইবন আজলান ইবন যবীআ ৷
যায়দ ইবন হারিছা ইবন শুরাহ্বীল ৷ রড়াসুলুল্লাহ্ (সা) এর মুক্ত দাস ৷

যায়দ ইবন খাত্তাব ইবন নুফায়ল ৷ উমর ইবন খাত্তাবের ভইি ৷

যায়দ ইবন সাহ্ল ইবন আসওয়াদ ইবন হারাম আন-নাজ্জারী আবু তাল্হা (বা) ৷

সীন আদ্যাক্ষয় বিশিষ্ট নামসমুহ
সালিম ইবন উমড়ায়র আল-আওসী ৷
সালিম ইবন গনোম ইবন আওফ খাযরাজী ৷
সালিম ইবন মাকাল আবু হুযায়ফার মিত্র ৷

সাইব ইবন উছমান ইবন মড়াসউন আল-জ্বমড়াহী তিনি তার পিতার সাথে এ যুদ্ধে গমন
করেন ৷

সুবায় ইবন কায়স ইবন আইয আল-খাযরাজী ৷
সুবরা ইবন ফাতিক ৷ ইমাম বুখারী এ নাম উল্লেখ করেছেন ৷
সুরাকা ইবন আমর আন-নাজ্জারী ৷

১ : : সুরাকা ইবন কাআব আন-নাজ্জারী ৷

১০১ সাআদ ইবন খাওলা ৷ বনু আমির ইবন লুওয়াই এর মিত্র এবং প্রথম দিকের মুহাজির ৷
১ : ২ সাআদ ইবন খায়ছামা আল-আওসী ৷ এ যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

১ :৩ সাআদ ইবন রাবী খাযরাজী ৷ উহুদ যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

১০৪ সাআদ ইবন যায়দ ইবন মালিক আল-আওসী ৷ ওয়াকিদী বলেছেন, সাআদ ইবন যায়দ

ইবন ফাকিহ্ আল-খাযরাজী ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া

সাআদ ইবন সুহায়ল ইবন আবদুল আশহাল আন-নাজ্জারী ৷
সাআদ ইবন উবায়দ আল-আনসারী ৷

সাআদ ইবন উছমান ইবন খালদা আল-খাযরাজী আবু উবাদা ৷ ইবন আইয বলেছেন
আবু উবায়দা ৷

সাআদ ইবন মুআয আল-আওসী ৷ যুদ্ধে আওস গোত্রের ঝাণ্ডা তার হাতেই ছিল ৷

সাআদ ইবন, উবাদা ইবন দালীম আল-খাযরাজী ৷ উরওয়া, বুখারী, ইবন আবু হাতিম,
তাবারানী প্রমুখ তাকে বদরী সাহাবীগণের অতভুক্তি করেছেন ৷ সহীহ্ মুসলিমের একটি
বর্ণনা থেকে এর সাক্ষ্য পাওয়া যায় ৷ ঐ বর্ণনায় আছে, রাসুলুল্লাহ্ (সা) যখন কুরায়শের
বাণিজ্য কাফেলাকে ধরার জন্যে সাহাবাদের মতামত গ্রহণ করেন, বারবার মতামত
চাওয়ায় সাআদ ইবন উবাদা দাড়িয়ে বললেন, ইয়া রাসুল্পল্লাহ্! আপনি সম্ভবত
আমাদের অর্থাৎ মদীনাবাসীদের মতামত চাচ্ছেন– আল-হাদীছ ৷ কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ঐ
ব্যক্তি ছিলেন সাআদ ইবন মুআয ৷ সাআদ ইবন উবাদা সম্পর্কে প্রসিদ্ধ মত হল :
মদীনায় রাসুলুল্পাহ্র প্রতিনিধিত্ব করার জন্যে রাস্তা থেকে তাকে ফেরত পাঠান হয় ৷
কারও মতে সাআদ ইবন উবাদাকে সর্প দংশন করে ৷ ফলে তিনি বদয়ে যেতে
পারেননি ৷ সুহড়ায়লী এ কথা ইবন কুতায়বা থেকে বর্ণনা করেছেন ৷

সাআদ ইবন আবু ওয়াক্কাস- মালিক ইবন উহায়ব অড়ায-যুহরী ৷ জান্নাতের
সুসংবাদপ্রাপ্ত দশ জনের অন্যতম ৷

সাআদ ইবন মালিক আবু সাহ্ল ৷ ওয়াকিদী বলেন, বদর যুদ্ধে যাওয়ার জন্যে সাআদ
ইবন মালিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিলেন ৷ কিন্ত বের হওয়ার পুর্বেই তিন রোগাক্রান্ত হয়ে
মারা যান ৷

সাঈদ ইবন যায়দ ইবন আমর ইবন নুফায়ল আল-আদবী ৷ উমর ইবন খাত্তাবের ফুফাত

ভাই ৷ কথিত আছে ৷ বদর রণাংগন থেকে মুসলমানগণে প্রত্যাবর্ত্যনর পর সাঈদ
সিরিয়া থেকে মদীনায় ফিরে আসেন ৷ রাসুলুল্লাহ্ (সা) তাকে গনীমতের ভাগ ও
পুরস্কার দান করেন ৷

সুফিয়ান ইবন বিশৃর ইবন আমর খাযরাজী ৷
সালামা ইবন আসলাম ইবন হুরায়শ আওসী ৷
সালামা ইবন ছাবিত ইবন ওকাশ ইবন যাগাবা ৷
সালামা ইবন সালামা ইবন ওকাশ ইবন যাগাবা ৷
সুলায়ম ইবন হারিছ আন-নাজ্জারী ৷

সুলায়ম ইবন আমর আস-সুলামী ৷

সুলায়ম ইবন কায়স ইবন ফাহড়াদ অড়াল-যাযরাজী ৷

আল-বিদায়৷ ওয়ান নিহায়া ৫৫৩

সুলায়ম ইবন মিলহান নাজ্জারী ৷ ইনি হারাম ইবন মিলহানের ভাই ছিলেন ৷
সিমাক ইবন আওস ইবন খারাশা আবু দুজান৷ ৷ তাকে সিমাক ইবন থারাশাও বলা হয় ৷

সিমাক ইবন সাঅড়াদ ইবন ছালাব৷ আল-খাযরড়াজী ৷ ইনি পুর্বোল্লিখিত বাশীব ইবন
সাআদের ভাই ৷

সাহ্ল ইবন হানীফ আল-আওসী ৷
সাহ্ল ইবন আতীক আন-নাজ্জারী ৷
সাহ্ল ইবন কায়স আস সুলামী ৷

সাহ্ল ইবন রা ৷ফি আন-নাজ্জা ৷রী ৷ তার জন্যে ও তার ভাইয়ের জন্যে মসজিদে নববীতে
একটি স্থান নির্দিষ্ট ছিল ৷

সুহাল ইবন ওয়াহব আল-ফিহ্রী ৷ তার মায়ের নাম ছিল বায়যা ৷

সিনান ইবন আবু সিনান ইবন মিহ্সান ইবন হারছান ৷ তিনি ছিলেন একজন মুহাজির
এবং বনু আবদে শামৃস ইবন আবদে মানাফের মিত্র ৷

সিনান ইবন সায়ফী আস-সুলামী ৷
সাওয়াদ ইবন যুরায়ক ইবন যায়দ আনসারী ৷ উমাবী বলেছেন, সাওয়াদ ইবন রিযাম ৷
সাওয়াদ ইবন গাযিয়াহ্ ইবন উহায়ব আল-বালাবী ৷
সুওয়ায়বিত ইবন সাআদ ইবন হারমাল৷ আল-আবদারী ৷
সুওয়ায়দ ইবন মুথশী আবু মুথশী আত-তাঈ ৷ বনু আবদে শামৃস এর মিত্র ৷ কারও মতে
তার নাম ছিল উযায়দ ইবন হুমায়র ৷

শীন’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

শুজা ইবন ওয়াহব ইবন রাবীআ আল-আসাদী, আসাদ ইবন খুযায়মা ৷ বনু আবদে
শামৃস-এর মিত্র এবং প্রথম দিকের মুহাজির ৷

শাম্মাস ইবন উছমান আল-মাখয়ুমী ৷ ইবন হিশাম বলেন, প্রথম দিকে তীর নাম ছিল

উছমান ইবন উছমান ৷ কিন্তু মুথশ্রী ও অবয়বে জাহিলী যুগের শাম্মাস নামক এক

ব্যক্তির সাথে তীর সাদৃশ্য থাকায় লোকে র্তাকে শাম্মাস বলতো ৷

শাকরান-র বাসুলুল্লাহ্ (সা) এর আযাদকৃত গোলাম ৷ ওয়াকিদী বলেন, গনীমতের কোন
মাল শাকরানকে দেয়৷ হয়নি ৷৩ তবে বদরের বন্দীদের দেখাশুনার দায়িতৃ তার উপর ন্যস্ত

করা হয়েছিল ৷ তাই যাদেরই বন্দী ছিল , তারা প্রত্যকেই তা ৷কে কিছু কিছু মাল দেয় ৷
এতে এক এক জনের প্রাপ্য অংশের চাইতে তিনি অধিক মাল প্রাপ্ত হন ৷

সােয়াদ’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
সুহায়ব ইবন সিনান আর-রুমী প্রথম দিকের মুহাজির ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া

সাফ্ওয়ান ইবন ওয়াহব ইবন রাবীআ আল-ফিহ্রী সুহায়ল ইবন বায়যার ভাই ৷ এ
যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

সাখার ইবন উমাইয়া ইবন খানৃসা আস-সুলামী ৷

দােয়াদ’ আদ্যক্ষের বিশিষ্ট নামসমুহ
দাহ্হাক ইবন হারিছা ইবন যায়দ আস-সুলড়ামী ৷
দাহ্হাক ইবন আবদে আমর আন-নাজ্জারী
দামরা ইবন আমর আল-জুহানী ৷ মুসা ইবন উক্বার মতে , তীর আসল নাম ছিল দামরা
ইবন কাঅড়াব ইবন আমর যিনি ছিলেন আনসারদের মিত্র ও যিয়াদ ইবন আমরের
ভাই ৷ ’

তােয়া আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
তালহা ইবন উৰায়দুল্লাহ আততড়ায়যী ৷ আশারায়ে মুবাশশারার অন্যতম ৷ বদর থেকে
মুসলিম মুজাহিদগণ মদীনায় প্রত্যাবর্তনের পর তিনি সিরিয়া থেকে ফিরে আসেন ৷
রাসুলুল্লাহ্ (সা) র্তাকে গনীমতের অংশ ও যুদ্ধের পুরস্কার দান করেন ৷

তৃফায়ল ইবন হড়ারিছ ইবন মুত্তালিব ইবন আবদে মানাফ ৷ তিনিও ছিলেন মুহাজির এবং

ৰু হুসাইন ও উবায়দার ভাই ৷

তৃফায়ল ইবন মালিক ইবন খানৃসা আস-সুলামী ৷
তৃফায়ল ইবন নুমান ইবন খানৃসা আস-সুলামী ৷ ইনি পুর্বোল্লিখিত জনের চাচড়াত ভাই ৷
তৃলায়ব ইবন উমায়র ইবন ওয়াহাব ইবন আবু কবীর ইবন আবৃদ্ ইবন কুসাই ৷
ওয়াকিদী এরুপ উল্লেখ করেছেন ৷
যােয়া আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
যুহায়র ইবন রাফি’ আওসী ৷ বুখারী তার নাম বদরী সাহাবীগণের মধ্যে উল্লেখ
করেছেন ৷
আইন’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

আসিম ইবন ছাৰিত আবুল আফলাহ আনসারী ৷ যিনি রাজীর মর্মান্তিক ঘটনায় শহীদ
হলে মৌমাছির পাল তার মৃতদেহকে ঘিরে রেখে শক্রদের হাত থেকে রক্ষা করেছিল ৷

আসিম ইবন আদী ইবন জাদ্দায়ন আজলানে ৷ রাসুলুল্লাহ্ (সা) র্তাকে রাওহা থেকে
ফেরত পাঠিয়েছিলেন ৷ তবে যুদ্ধের পর প্রাপ্ত গনীমতের অংশ ও পুরস্কার র্তাকে
দিয়েছিলেন ৷

আসিম ইবন কায়স ইবন ছাৰিত খাযরাজী ৷
আকিল ইবন বৃকায়র ৷ ইনি ইয়াস, খালিদ ও আমির-এর ভাই ৷

আমিল ইবন উমাইয়া ইবন যায়দ ইবন হাসহাস আন-নাজ্জারী ৷

আমির ইবন হারিছ আল-ফিহ্বী ৷ ইবন ইসহাক ও ইবন অইিয থেকে সালামা এরুপই
বর্ণনা করেছেন! কিন্তু মুসা ইবন উকবা ও যিয়াদ ইবন ইসহাক থেকে তার নাম বর্ণনা
করেছেন আমর ইবন হারিছ ৷

আমির ইবন রড়াবীআ ইবন মালিক আল-আনড়াযী ৷ তিনি ছিলেন বনী আদীর মিত্র ও
মুহাজির ৷

আমির ইবন সালামা ইবন আমির ইবন আবদুল্লাহ্ আল-বালাবী আল-কুযাঈ বনু
সালিম ইবন মালিক ইবন সালিম ইবন গনোম-এর মিত্র ৷ ইবন হিশাম বলেন তার নাম
ছিল আমর ইবন সালামা ৷

আমির ইবন আবদুল্লাহ্ ইবন জাবৃরাহ্ ইবন হিলাল ইবন উহায়ব ইবন দাব্ব৷ ইবন
হারিছ ইবন ফিহ্র আবু উবায়দা ইবন জাররাহ ৷ ইনি ছিলেন আশারায়ে
মুবাশৃশারার অন্তর্ভুক্ত এবং প্রথম হিজরতকারীদের অন্যতম ৷

আমির ইবন ফুহায়রা হযরত আবু বকর সিদ্দীকের আযাদকৃর্ভ গোলাম ৷

আমির ইবন মুখাল্লাদ আন-নাজ্জারী ৷

অইিয ইবন মাইয ইবন কায়স আল-খাযরাজী ৷

আব্বাদ ইবন বিশ্ব ইবন ওকাশ আল-আওসী ৷

আব্বাদ ইবন কায়স ইবন আমির আল-খাযরাজী ৷

আব্বাদ ইবন কায়স ইবন অইিশা আল-খাযরাজী ৷ পুর্বোল্লিখিত সুবায় এর ডাই ৷

আব্বাদ ইবন খাশখাশ আল-কুযাঈ ৷

উবাদা ইবন সামিত আল-খাযরাজী ৷

উবাদা ইবন কায়স ইবন কাআব ইবন কায়স ৷

আবদুল্লাহ্ ইবন উমাইয়া ইবন আরফাতা

আবদুল্লাহ্ ইবন ছালাবা ইবন খাযমা পুর্বোল্লিখিত বাহাছ ইবন ছা’লাবার ভাই ৷

আবদুল্পাহ্ ইবন জাহশ ইবন রিছাব আল-আসাদী ৷

আবদুল্লাহ্ ইবন জুবায়র ইবন নুমান আল আওসী ৷

আবদুল্লাহ্ ইবন জাদ্ ইবন কায়স আস-সুলামী ৷
আবদুল্লাহ্ ইবন হ্ক্ ইবন আওস আস-সাইদী ৷ তবে মুসা ইবন উক্বা, ওয়াকিদী ও
ইবন অইিয তার নাম আবদৃ বব ইবন হক বলে উল্লেখ করেছেন ৷ আর ইবন হিশাম
বলেছেন, আবদৃ রাব্বিহী ইবন হক ৷
আবদুল্লাহ্ ইবন হুমায়র বনু হারামের মিত্র এবং আশজা গোত্রের খারিজা ইবন
হুমায়রের ভাই ৷

আল-বিদায়৷ ওয়ান নিহায়া

আবদুল্লাহ ইবন ৱাবী’ ইবন কায়স আল-খাযরাজী ৷
আবদুল্লাহ ইবন রাওয়াহ৷ আল খাযরাজী ৷

আবদুল্লাহ ইবন যায়দ ইবন আবদে রাব্বিহী ইবন ছা লাবা আ ল খাযরাজী যাকে স্বপ্ন
যােগে আযানের শব্দমালা দেখান হয়েছিল ৷

আবদুল্লাহ ইবন সুরাকা আল-আদাবী ৷ তার নাম বদয়ী সাহাবীদের মধ্যে মুসা ইবন
উক্বা, ওয়াকিদী ও ইবন আইয উল্লেখ করেননি ৷ তবে ইবন ইসহাক প্রমুখ উল্লেখ
করেছেন ৷

আবদুল্লাহ ইবন সালামা ইবন মালিক আল-আজলান আনসারদের মিত্র ৷
আবদুল্লাহ ইবন৷ স৷ হল ইবন রাফিন্ ইনি বনু যাউরাভুক্ত ছিলেন ৷

আবদুল্লাহ ইবন সুহায়ল ইবন আমর ৷ তিনি তার পিতার সাথে মুশবিকদের পক্ষে যুদ্ধ
করার জন্যে বদরে আসেন ৷ কিন্তু যুদ্ধের প্রাক্কালে মুশরিকদের পক্ষ ত্যাগ করে
মুসলমানদের সঙ্গে মিশে যান এবং ঘুশরিকদের বিরুদ্ধে লড়াই করেন ৷

আবদুল্লাহ ইবন তারিক ইবন মালিক আল-কুযাঈ আনসারদের মিত্র ৷

আবদুল্লাহ ইবন আমির বালী গোত্রের ৷ ইবন ইসহাক তাকে বদয়ী সাহাবী বলে
উল্লেখ করেছেন ৷

আবদুল্লাহ ইবন আবদুল্লাহ ইবন উবাই ইবন সালুল আল-খাযরাজী ৷ তার পিতা
আবদুল্লাহ ইবন উবাই ছিল মুন৷ ৷ফিকদেৱ প্রধান ৷

আবদুল্লাহ ইবন আবদুল আসাদ ইবন হিলা ৷ল ইবন আবদুল্লাহ ইবন আমার ইবন মাখবুম
আবু সা ৷লাম৷ ৷ তিনি উম্মে সালামার প্রথম স্বামী ছিলেন ৷ এ যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

আবদুল্লাহ ইবন আবদে মানাফ ইবন নুাম ন আস-সুলামী ৷
আবদুল্লাহ ইবন আবস ৷

আবদুল্লাহ ইবন উছমান ইবন আমির ইবন আমর ইবন কাআব ইবন তায়ম ইবন মুররা
ইবন কাআব আবু বকর সিদ্দীক (রা)৷

আবদুল্লাহ ইবন আরফা৩ ৷ ইবন আদী আল খাযরাজী ৷
আবদুল্লাহ ইবন উমর ইবন হারাম আস-সুলামী৷ আ বু জাবির ৷
আবদুল্লাহ ইবন উমায়র ইবন আদী আল-খড়াযরাজী ৷
আবদুল্লাহ ইবন কায়স ইবন খালিদ আন-নাজ্জারী ৷
আবদুল্লাহ ইবন কায়স ইবন সাখার ইবন হারাম আস-সুলামী ৷

আবদুল্লাহ ইবন কাআব ইবন আমর ইবন আওফ ইবন মাবয়ুল ইবন আমর ইবন
গানাম ইবন ম৷ ৷যিন ইবন নাজ্জার ৷ নবী করীম (সা) র্তাহ্রকও আদী ইবন আবিয-যাগবার
সঙ্গে বদরের গনীমতে র দায়িত্বে নিযুক্ত করেছিলেন ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৫৫ ৭

াবদুল্লাহ্ ইবন মাখরামা ইবন আবদুল উঘৃযাৰু প্রথম দিকের যুহাজির ৷

আংদুল্লাহ্ ইবন মড়াসৃউদ আল-হুযালী বনু যুহরার মিত্র এবং প্রথম দিকের মুহাজির ৷

আবদুল্লাহ ইবন মাযউন আল-জুমাহী ৷ প্রথম দিকের মুহাজির ৷

আবদুল্লাহ্ ইবন নৃমান ইবন বালদামা আস্-সুলড়ামী ৷

আবদুল্পাহ্ ইবন উনায়সা ইবন নুমান সুলামী ৷

আবদুর রহমান ইবন জাবর ইবন আমর আবু উৰায়স আল-খাযরাজী ৷

আবদুর রহমান ইবন আবদুল্লাহ্ ইবন ছালাবা আবু আকীল আল-কুযাঈ আল-বালাবী ৷

আবদুর রহমান ইবন আওফ ইবন আবদে আওফ ইবন আবদুল হারিছ ইবন যুহরা ইবন
কিলাব যুহরী ৷ আশারায়ে মুবাশৃশারার অন্যতম ৷

আবস ইবন আমির ইবন আদী আস-সুলামী ৷

উবায়দ ইবন তড়ায়হান ৷ আবুল হায়ছাম ইবন তায়হানের তা ই ৷ কেউ কেউ বলেছেন
র্তার নাম উবায়দ নয়, বরং আতীক ছিল ৷

উবায়দ ইবন ছালাবা ৷ ইনি বনু গানাম ইবন মালিক গোত্রের লোক ছিলেন ৷

উবায়দ ইবন যায়দ ইবন আমির ইবন আমর ইবন আজলান ইবন আমির ৷

উবায়দ ইবন আবু উবায়দ ৷

উবায়দা ইবন হারিছ ইবন মুত্তালিব ইবন আবদে মানাফ ৷ হুসায়ন ও তুফায়লের ভাই ৷
বদর যুদ্ধে মুসলমানদের পক্ষে যে তিন জন মল্লযুদ্ধে অংশ নেন উবায়দা ছিলেন তাদের
অন্যতম ৷ মল্লযুদ্ধে র্তার হাত কেটে যায় ৷ ফলে তিনি শহীদ হন ৷

ইতবান ইবন মালিক ইবন আমর খাযরাজী ৷

উত্বা ইবন রাবীআ ইবন খালিদ ইবন মুআবিয়া আল-বাহ্রানী ৷ বনু উমাইয়া ইবন
লাওযানের মিত্র ৷

উত্বা ইবন আবদুল্লাহ্ ইবন সাথার সুলামী ৷

উত্বা ইবন পাঘৃওয়ান ইবন জাবির ৷ তিনি প্রথম দিকের একজন মুহড়াজির ৷

উছমান ইবন আফ্ফান ইবন আবুল আস ইবনউমাইয়া ইবন আবদে শামস ইবন
আবদে মানাফ আল-উমাবী ৷ আমীরুল মু’মিনীন ৷ চার খলীফার অন্যতম এবং
আশারায়ে মুবাশশারার অন্তর্ভুক্ত ৷ তিনি বদর যুদ্ধে অংশ্যাহণ করতে পারেননি ৷ তীর
য়হধর্মিণী রাসুলুল্লাহ্র কন্যা রুকাইয়া রোগাক্রান্ত হওয়ায় তিনি মদীনায় থেকে যান ৷ এ
রোগে রুকাইয়ার মৃত্যু হয় ৷ রাসুলুল্লাহ্ (সা) উছমানকে গনীমতের অংশ দেন ও যুদ্ধের
পুরস্কা র দেন ৷

উছমান ইবন মাযউন আল-জুমাহী আবুস সাইব ৷ আবদৃল্পাহ্ ও কুদামার ভাই এবং প্রথম
হিজরতকা রীদের অন্তর্ভুক্ত ৷

২১ : আদী ইবন আবুর রাগাবা আল-জুহানী ৷ তাকে ও বাসবাস ইবন অড়ামরকে রাসুলুল্লাহ্
(সা) গুপ্তচর হিসেবে আগে প্রেরণ করেন ৷

২১৫ ইসমড়া ইবন হুসাইন ইবন ওবারা ইবন থালিদ ইবন আজলান ৷

২১৬ আসীমা তিনি ছিলেন আশজা’ কিৎবা বনু আসাদ ইবন খুযায়মা গোত্রের শাখা বনু
হারিছ ইবন সাওয়ারের মিত্র ৷

২১ ৭ আতিয়্যা ইবন নুওয়ায়রা ইবন আমির ইবন আতিয়্যা আল-খাযরাজী ৷

২১৮ উকবা ইবন আমির ইবন নাবী আস-সুলামী ৷

২১ ৯ উকবা ইবন উছমান ইবন খালদা খাযরাজী ৷ সাআদ ইবন উছমানের ভাই ৷

২২০ উকবা ইবন আমর আবু মাসউদ আল-বদরী ৷ সহীহ্ বুখারীতে আছে যে, তিনি বদর

যুদ্ধে অংশ্যাহণ করেছিলেন ৷ কিন্তু বহু মাপাযী লেখক বদরী সাহাবীদের মধ্যে তার নাম
উল্লেখ করেননি ৷

২২১ উকবা ইবন ওয়াহব ইবন রাবীআ আল-আসাদী যিনি ছিলেন খুযায়মা গোত্রের সিংহ
তৃল্য ৷ তিনি ছিলেন বনু আবদে শামসের মিত্র ও শুজা ইবন ওয়াহবের ভাই এবং প্রথম
সারির মুহাজির ৷

২২২ উকবা ইবন ওয়াহব ইবন কালদা বনু গাতফানের মিত্র ৷

২২৩ উকাশা ইবন মিহ্সান পানামী প্রথম দিকের একজন মুহাজির এবং র্যাদের কোন
হিসাব নেয়া হবে না বলে ঘোষণা আছে, তিনি হচ্ছেন তাদের অন্যতম ৷

২২৪ আলী ইবন আবু তালিব আল-হাশিমী ৷ আমীরুল মু’মিনীন খলীফা চতৃষ্টয়ের
অন্যতম ৷ বদরে তিন মল্লযোদ্ধার মধ্যে তিনি একজন ৷

২২৫ আমার ইবন ইয়াসির আল-আনাসী আল-মাযহড়াজী প্রথম দিকের মুহাজির ৷

২২৬ আম্মারা ইবন হাযম ইবন যায়দ আন-নাজ্জারী ৷

২২৭ উমর ইবন খাত্তাব, আমীরুল মু’মিনীন ৷ চার খলীফার অন্যতম এবং অনুসরণীয় প্রথম
খলীফাদ্বয়ের একজন ৷

২২৮ উমর ইবন আমর ইবন ইয়াস ৷ তিনি ছিলেন ইয়ামানবাসী ও বনু লাওযান ইবন আমর
ইবন সালিম-এর মিত্র ৷ কারো কারো মতে, তিনি করার ও ওয়ারাকার ভাই ৷

২২৯ আমর ইবন ছালাবাইবন ওয়াহব ইবন আদী ইবন মালিক ইবন আদী ইবন আমির
আবু হাকীম

২৩০ আমর ইবন হারিছ ইবন যুহয়ের ইবন আবু শাদ্দাদ ইবন রাবীআ ইবন হিলাল ইবন
উহায়ব ইবন যাবশা ইবন হারিছ ইবন ফিহ্র আল-ফিহরী ৷

২৩১ আমর ইবন সুরড়াকা আল-আদাবী মুহাজির ৷

২৩২ আযর ইবন আবু সারাহ আল-ফিহরী মুহাজির ৷ ওয়াকিদী ও ইবন আইয আমরের
পরিবর্তে মা’মার বলেছেন ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৫৫৯

আমর ইবন তালক ইবন যায়দ ইবন উমাইয়া ইবন সিনড়ান ইবন কাআব ইবন পানড়াম ৷
তিনি বনু হারামের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন ৷

আমর ইবন জামুহ্ ইবন হারাম আনসারী ৷

আমর ইবন কায়স ইবন যায়দ ইবন সাওয়াদ ইবন মালিক ইবন গানাম ৷ তার নাম
ওয়াকিদী ও উমাবী বদরী মুজাহিদদের মধ্যে উল্লেখ করেছেন ৷

আমর ইবন কায়স ইবন মালিক ইবন আদী ইবন খানসা ইবন আমার ইবন মালিক
ইবন আদী ইবন আমির আবু খারিজা ৷ অবশ্য মুসা ইবন উকবা বদরীদের মধ্যে তার
নাম উল্লেখ করেননি ৷

আমর ইবন আমির ইবন হারিছ আল-ফিহ্রী ৷ মুসা ইবন উকবা তাকে বদরী বলে
উল্লেখ করেছেন ৷

আমর ইবন মা’বাদ ইবন আযআর আল-আওসী ৷

আমর ইবন মুআয আল-আওসী ৷ সাআদ ইবন যুআমের ভাই ৷

উমায়র ইবন হারিছ ইবন ছা’লাবা ৷ মতান্তরে আমর ইবন হারিছ ইবন লাবদা ইবন
ছালাবা আসৃ-সুলামী ৷

উমায়র ইবন হারাম ইবন জামুহ্ আস-সুলামী ৷ ইবন আইয ও ওয়াকিদীর বর্ণনা মতে ৷
উমায়র ইবন হাম্মাম ইবন জামুহ্ ৷ পুর্বোল্লিখিত উমায়রের চাচাত ভইি ৷ এ যুদ্ধে তিনি
শহীদ হন ৷

উমায়র ইবন আমির ইবন মালিক ইবন থানৃসা ইবন মাবঘুল ইবন আমর ইবন গানাম
ইবন মড়াযিন আবু দাউদ আল-মাযিনী ৷

উমায়র ইবন আওফ ৷ সুহড়ায়ল ইবন আমরের আযাদকৃত গোলাম ৷ উমাবী ও অন্যান্যরা
তীর নাম আমর ইবন আওফ বলেছেন ৷ বুখড়ারী ও মুসলিমে যে হড়াদীছে আবু
উবায়দাকে বাহ্রায়নে প্রেরণের কথা বলা হয়েছে, সেই হাদীছেও উমায়রের নাম
আমর লেখা হয়েছে ৷

উমায়র ইবন মালিক ইবন উহড়ায়ব আয যুহরী ৷ সাআদ ইবন আবু ওয়াক্কাসের ভাই ৷
বদর যুদ্ধের দিন তিনি শহীদ হন ৷

আনতারা বনুসুলায়মের আযাদকৃত গোলাম ৷ কারো কারো মতে, তিনি গোলাম নন,
বরং বনু সুলায়মেরই একজন ৷

আওফ ইবন হারিছ অড়ান-নাজ্জারী ৷ তিনি আফরা বিন্ত উবায়দ ইবন ছালাবা
আন-নাজ্জারিয়ার পুত্র ৷ এ যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

উওয়ায়ম ইবন সাইদা আনসারী ৷ বনু উমাইয়া ইবন যায়দ গোত্রের ৷
ইয়ায ইবন গানাম আল-ফিহ্রী ৷ প্রথম দিকের মুহাজির ৷

আল-বিদায়৷ ওয়ান নিহায়া

পাইন’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

পানাম ইবন আওস খাযরাজী ৷ ওয়াকিদী এ নাম উল্লেখ করেছেন ৷ কিত্তু তার বদরী
হওয়া র বিষয়ে সবাই একমত নন ৷

ফা’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
ফাকিহ্ ইবন বিশৃর ইবন ফাকিহ্ খাযরাজী ৷
ফারওতা ইবন আমর ইবন ওয়াদফা আল-খাযরাজী ৷

ক্াফ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ;
কাতাদ৷ ইবন নুমান আল-আওসী ৷
কুদামা ইবন মাযউন আল-জুমাহী ৷ তিনি মুহাজির এবং উছমান ও আবদুল্লাহ্র ভাই ৷
কুতবাত ইবন আ ৷মির ইবন হাদীদা আস-সুলামী ৷
কায়স ইবন৷ সাক ৷ন না ৷জ্জারী ৷

কায়স ইবন আবু সা “স৷ আ আমর ইবন যায়দ অল মামিনী ৷ বদর যুদ্ধে৩ তিনি পশ্চাৎ
বাহিনীতে ছিলেন ৷

কায়স ইবন মিহ্সান ইবন খালিদ খাযরাজী ৷
কায়স ইবন ঘুখাল্লাদ ইবন ছা’লাবা আন-নাজ্জারী ৷

কাফ’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
কাআব ইবন হুমা ন ৷৩ তাকে ইবন জুম৷ র এবং ইবন জুমাযও বলা হয় ৷ ইবন হিশ ৷৷ম তার
নাম কা ৷আব ইবন আবশান লিখেছেন ৷৩ তিনি বলেছেন, তাকে কাআব ইবন মালিক ইবন
ছা লাবা ইবন জুমাযও বলা হয় ৷ উমাবী তার নাম লিখেছেন ক ৷আব ইবন ছা লাব৷ ইবন
হিবা লা ইবন গানাম গাসৃসা ৷নী ৷ তিনি ছিলেন বনু খাযরাজ ইবন সা ইদার মিত্র ৷

কাআব ইবন যায়দ ইবন কায়স নাজ্জারী ৷
কআ৷ব ইবন আমর আবুল ইয়াসার সুলামী ৷

কুলফা ইবন ছালাবা ৷ আল্লাহ্র ভয়ে যারা সর্বদা কান্নাকাটি করতেন তিনি ছিলেন
তাদেরই একজন ৷ মুসা ইবন উকবাও ৷র কথা উল্লেখ করেছেন ৷

কুনায ইবন হুসায়ন ইবন ইয়ারবু-আবু ম ৷রছাদ গানাবী ৷ তিনিও ছিলেন প্রথম দিকের
একজন মুহাজির ৷
মীম’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
মালিক ইবন দৃখশাম খাযরাজী ৷ তাকে ইবন দৃথশানও বলা হয় ৷
মালিক ইবন আবু খাওলা আল-জুফী বনু আদীর মিত্র ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৫৬ ;

মালিক ইবন রাবীআ আবু উসায়দ আস-সাইদী ৷

মালিক ইবন কুদামা আলআওসী ৷

মালিক ইবন আমর ৷ ছাকাফ ইবন আমরের ভাই ৷ র্তারা দু’ জনই ঘৃহাজির এবং বনু
তামীম ইবন দুদান ইবন আসাদ-এর মিত্র ৷

মালিক ইবন কুদামা আল-আওসী ৷

মালিক ইবন মাসউদ আল-খাযরাজী ৷

মালিক ইবন ছাবিত ইবন ছুমায়লা আল-মুযানী ৷ বনু আমর ইবন আওফ-এর মিত্র ৷
মুবাশ্শির ইবন আবদুল মুনযির ইবন যানীর আওসী ৷ আবু লুরাব ও রিফাআর ভাই ৷
বদরে তিনি শহীদ হন ৷

মৃজাযযর ইবন যিয়াদ বালবী যুহাজির ৷

মুহাররিয ইবন আমির নাজ্জারী

মুহাররিয ইবন নাযল৷ আল-আসাদী ৷ তিনি বনু আবদে শামস এর মিত্র এবং মৃহাজির ৷
মুহাম্মদ ইবন মাসলামা ৷ বনু আবদে আশহালের মিত্র ৷

মুদলিজ ইবন আমর ৷ র্তাকে ঘুদলাজও বলা হয় ৷ ছাকাফ ইবন আমরের ভাই ও
মুহড়াজির ৷
মারছাদ ইবনৃ আবু মারছাদ আল-গানাবী ৷

মিসতাহ্ ইবন উছাছা ইবন আব্বাদ ইবন যুত্তালিব ইবন আবদে মানড়াফ ৷ প্রথম দিকের
ঘুহাজির ৷ কারো কারো মতে র্তার নাম আওফ ৷

মাসউদ ইবন আওস আল-আনসারী আন-নাজ্জারী ৷

মাসউদ ইবন খালদা আল-খাযরাজী ৷

মাসউদ ইবন রাবীআ আল-কারী ৷ বনু যুহরার মিত্র ও মৃহাজির ৷

মাসউদ ইবন সাআদ হাকে ইবন আবদে সা’দ ইবন আমির ইবন আদী ইবন জুশাম
ইবন মাজদাআ ইবন হারিছা ইবন হারিছও বলা হয় ৷

মাসউদ ইবন সাআদ ইবন কায়স আল-খাযরাজী ৷

মুসআব ইবন উমায়র আবদারী মুহাজির ৷ বদর যুদ্ধের পতাকা সে দিন তীর হাতেই
ছিল ৷

মুআয ইবন জাবাল খাযরাজী ৷

মুআয ইবন হারিছ নাজ্জারী ৷ ইনিই হচ্ছেন আফরার পুত্র এবং আওফ ও মুআওয়াযের
ভাই ৷

মুআয ইবন আমর ইবন জামুহ আল-খাযরাজী ৷

মুআয ইবন মাইয আল-থাযরড়াজী ৷ তিনি আইয-এর ভাই ছিলেন ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া

মাবাদ ইবন আকাদ ইবন কুশায়ব ইবন কাযম ইবন সালিম ইবন গানাম ৷ র্তাকে মাবাদ
ইবন উবাদা ইবন কায়সও বলা হয় ৷ ওয়াকিদী কুশায়র এর পরিবর্তে কাশআর
বলেছেন ৷ ইবন হিশাম বলেছেন কাশআর আবু খামীযা ৷

মাবাদ ইবন কায়স ইবন সাখার আস-সুলামী ৷ আবদুল্লাহ ইবন কায়স-এর ভাই ৷
মুআত্তার ইবন উবায়দ ইবন ইয়াস আল-বড়ালাবী আলষ্কুযাঈ ৷

মুআত্তার ইবন আওফ আল-কুযাঈ বনু মাখয়ুমের মিত্র এবং মুহাজির ৷

মুঅড়াত্তাব ইবন কুশড়ায়র আল-আওসী ৷

মাকিল ইবন ঘুনযির আস-সুলামী ৷

মামার ইবন হারিছ আল-জুমড়াহীষ্ মুহাজির ৷

মাআন ইবন আদী আল-আওসী ৷

মুআওয়ায ইবন হারিছ আল-জুমড়াহী ৷ তিনি আফরার পুত্র এবং ঘুআয ইবন আওফ-এর
ভাই ৷

মুআওয়ায ইবন আমর ইবন জামুহ আস-সুলামী ৷ তিনি সম্ভবত মৃআয ইবন আমরের
ভাই ৷

মিকদাদ ইবন আমর আল বুহরানী ৷ তিনি মিকদাদ ইবন আসওয়াদ নামে প্রসিদ্ধ ৷ তিনি
প্রথম দিকের মুহাজির ৷ তার নামে বহু চমকপ্রদ ঘটনা বর্ণিত আছে ৷ বদর যুদ্ধে তিনি
ছিলেন অন্যতম অশ্বারোহী যোদ্ধা ৷

মালীল ইবন ওবারা আল-খাযরাজী ৷

মুনযির ইবন আমর ইবন খুনায়স সইিদী ৷

ঘুৰুযির ইবন কুদামা ইবন আরফাজা আল-খাযরাজী ৷

মুনযির ইবন মুহাম্মদ ইবন উক্বা আনসারী বনু জাহ্জার্বী গোত্রতুক্ত ৷
মাহ্জা হযরত উমর ইবন খাত্তাবের আযাদকৃত গোলাম ৷ তিনি ছিলেন মুলত
ইয়ামানের অধিবাসী এবং বদর যুদ্ধের প্রথম শহীদ ৷

নুন’ আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

নাসর ইবন হারিছ ইবন আবদে রাযাহ্ ইবন যাফর ইবন কাআব ৷

নুমান ইবন আবদে আমর আন-নাজ্জারী ৷ তিনি দাহ্হাকের ভাই ছিলেন ৷

নুমান ইবন আমর ইবন রিফাআ নাজ্জারী ৷

নুমান ইবন আসর ইবন হারিছ ৷ বনী আওসের মিত্র ৷

নুমান ইবন মালিক ইবন ছালাবা আল-খাযরাজী ৷ কাওকল নামেও তিনি পরিচিত ৷

আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া ৫৬৩

নুমান ইবন ইয়াসার ৷ বনু উবায়দের মিত্র ৷ র্তাকে নুমা ন ইবন সিনানও বলা হয় ৷
নাওফিল ইবন উবায়দুল্লাহ্ ইবন নাযলা আল-থাযরাজী ৷

হড়া আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
হানী ইবন নাইয়ার আবু বুরদা বালওয়াবী ৷ তিনি বারা’ ইবন আযিব এর মামা ৷

হিলাল ইবন উমাইয়া আল-ওয়াকিফী ৷ বৃখারী ও মুসলিমে কাআব ইবন মালিকের ঘটনা
বর্ণিত হাদীছে প্রাসংপিক আলোচনায় হিলাল ইবন উমাইয়াকে বদরী সাহাবী বলে
উল্লেখ করা হয়েছে ৷ অবশ্য কোন মাগাযী লেখক র্তাকে বদরী সাহাবী বলে উল্লেখ
করেননি ৷

হিলাল ইবন মৃআল্লা খড়াযরাজী যিনি রাফি ইবন মুআল্লার ভইি ৷

ওয়াও আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ
ওয়াকিদ ইবন আবদুল্লাহ তায়মী ৷ বনু আদীর মিত্র এবং ঘুহাজির ৷

ওয়াদীআ ইবন আমর ইবন জাররাদ আল-জুহানী ৷ ওয়াকিদী ও ইবন আইয-এর
বর্ণনানুসারে ৷

ওয়ারাকা ইবন ইয়াস ইবন আমর আল-খড়াযরাজী ৷ রাবী ইবন ইয়াসের ভাই ৷
ওয়াহব ইবন সাআদ ইবন আবু সারাহ্ ৷ মুসা ইবন উক্বা, ইবন আইয ও ওয়াকিদী

র্তাকে বনু আমির ইবন লুয়াই বংশের বলে উল্লেখ করেছেন ৷ বিন্দু ইবন ইসহাক তার
নাম উল্লেখ করেননি ৷

ইয়া আদ্যাক্ষর বিশিষ্ট নামসমুহ

ইয়াযীদ ইবন আখনাস ইবন জানার ইবন হাবীব ইবন জাবৃরা আস-সুলামী ৷ সুহায়লী
বলেন : ইয়াযীদ ইবন আখনাস, তার পিতা ও তার পুত্র সকলেই বদর যুদ্ধে অংশ্যাহণ
করেন ৷ এ রকম দৃষ্টান্ত সাহাবাগণের মধ্যে আর দেখা যায় না ৷ ইবন ইসহাকসহ
অনেকেই তাদের নাম উল্লেখ করেননি ৷ অবশ্য বায়আতৃর রিদওয়ানে র্তারা উপস্থিত
ছিলেন ৷

ইয়াযীদ ইবন হারিছ ইবন কায়স খাযরাজী ৷ ইনি সেই ব্যক্তি র্ষড়াকে তার
মায়ের দিকে সম্পর্কিত করে ইবন ফাসহামও বলা হয়ে থাকে ৷ এ যুদ্ধে তিনি
শহীদ হন ৷

ইয়াযীদ্ইবন আমির ইবন হাদীদা আবুল মুনযির আস-সুলামী ৷

ইয়াযীদ ইবন মুনযির ইবন সারাহ্ আস-সুলামী ৷ তিনি মা’কিল ইবন মুনযিরের
ভাই ছিলেন ৷

কুনিয়াত বিশিষ্ট বদরী সাহাবীগণের নাম
(যাদের নামের পুর্বে আবু’ আছে)
আবু উসায়দ মালিক ইবন রাবীআ ৷ তার আলোচনা পুর্বে এসে ণ্;ণছে ৷

আবুল আওয়ার ইবন হারিছ ইবন জালিম নাজ্জারী ৷ কিন্তু ইবন ছিশাম লিখেছেন : আবুল
আওয়ার হড়ারিছ ইবন জালিম ৷ আর ওয়াকিদী লিখেছেন : আবুল আওয়ার কাআব ইবন
হড়ারিছ ইবন জুনদুব ইবন জালিম ৷

আবু বকর সিদ্দীক ৷ পুর্বেই বলা হয়েছে যে, তীর নাম ছিল আবদুল্লাহ্ ইবন উছমান ৷

৪ আবু হাব্বা ইবন আমর ইবন ছাবিত ৷ তিনি ছিলেন বনু ছলেবা ইবন আমর ইবন আওফ

আনসারী গোত্রের লোক ৷

আবু হুযায়ফা ইবন উত্বা ইবন রাবীআন্ মুহাজির ৷ কেউ কেউ বলেছেন, তার নাম ছিল
মাহশাম ৷

আবুল হামরা ৷ তিনি হারিছ ইবন রিফাআ ইবন আফরার আযাদকৃত গোলাম ৷
আবু থুযায়মা ইবন আওস ইবন আসরাম আন-নাজ্জারী ৷
আবু সুবরা ৷ আবু রুহ্ম ইবন আবদুল উঘৃযার আযাদকৃত গোলাম ও যুহড়াজির ৷

আবু সিনান ইবন মিহসান ইবন হারছান ৷ তিনি ছিলেন উক্কাশার ভাই ৷ বদর যুদ্ধে র্তার
সাথে তার পুত্র সিনানও ছিলেন ৷ আর তিনি ছিলেন মুহাজির ৷

১০ ৷ আবুস সিয়াহ্ ইবন নুমান ৷ কারও কারও মতে, তার নাম ছিল উমায়র ইবন ছাবিত

ইবন নুমান ইবন উমাইয়া ইবন ইমরুল কায়স ইবন ছা’লাবা ৷ তিনি পায়ে আঘাত
পেয়ে বাধ্য হয়ে রাস্তা থেকে মদীনায় ফিরে আসেন ৷ রাসুলুল্লাহ্ (সা) র্তাকে গনীমতের
ৎশ দেন ৷ খায়বরের যুদ্ধে তিনি শহীদ হন ৷

১১ আবু আরফাজা ৷ তিনি ছিলেন বনু জাহজাবির মিত্র ৷
১ ২ আবু কাবশা ৷ তিনি রাসুলুল্লাহ্ (সা) এর আযাদকৃত গোলাম ছিলেন ৷
১৩ আবু লুবাবা বশীর ইবন আবদুল মুনযির ৷ পুর্বেই তার সম্পর্কে উল্লিখিত হয়েছে ৷

আবু মারছাদ আল-পানাবী কুনায ইবন হুসাইন ৷ পুর্বে তার সম্পর্কে আলোচনা করা
হয়েছে ৷

১৫ আবু মাসউদ আল-বদরী উকবা ইবন আমর ৷ ইতোপুর্বে র্তার সম্পর্কে আলোচনা

এসেছে

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Pin It on Pinterest

Hatay masaj salonu Diyarbakır masaj salonu Adana masaj salonu Aydın masaj salonu Kocaeli masaj salonu Muğla masaj salonu Yalova masaj salonu Gaziantep masaj salonu Kütahya masaj salonu Elazığ masaj salonu Bursa masaj salonu Konya masaj salonu Samsun masaj salonu Mersin masaj salonu Manisa masaj salonu Afyon masaj salonu Kütahya masaj salonu Çanakkale masaj salonu Edirne masaj salonu Yozgat masaj salonu Çorum masaj salonu>