সাআদ সাহেব দেওবন্দে গিয়ে পরিপূর্ণ রুজু করেছেন? দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায় আসবেন? খবরের সত্যতা কতটুকু?

গতকাল জামিয়া মাহমূদিয়া ইসহাকিয়া মানিকনগর–ঢাকা’র একজন মুহাদ্দিস সাহেব ফোন করে জিজ্ঞাসা করলেন, সাআদ সাহেব নাকি বাংলাদেশ থেকে সরাসরি দেওবন্দ গিয়েছেন এবং দেওবন্দের উলামা ও মুফতীয়ানে কিরামের সামনে যাবতীয় ভুল-ভ্রান্তি থেকে খালেস তাওবা করে পরিপূর্ণ রুজু করেছেন এবং তিনি নাকি ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে আসছেন? এ কথা কতটুকু সঠিক?

আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলাম, এ তথ্য কোথায় পেয়েছেন? তিনি বললেন, শুনলাম, ফেসবুকে এমন কথা লেখা হয়েছে।

তখন তাকে বুঝিয়ে বললাম যে, হ্যাঁ, ফেসবুকে এমন কথা লেখা হয়েছে ঠিক, তবে এটা প্রকৃত বাস্তব কথা নয়। কেননা, এ কথা যিনি ফেসবুকে লিখেছেন, তিনি এ লেখার শেষে এ কথা জুড়ে দিয়েছেন যে, “আমি স্বপ্ন দেখি এমন হোক।”

অর্থাৎ এটা তার মস্তিষ্কপ্রসূত স্বপ্ন বা কল্পনা–যা তিনি সত্য হোক বলে কামনা করেছেন। তাই শেষে লিখেছেন, “আমি স্বপ্ন দেখি, এমন হোক!!” সুতরাং এটা যে বাস্তব কথা নয়, সম্পূর্ণ কাল্পনিক, তা এই শেষ লাইন দ্বারাই বুঝা যায়।

কিন্তু সেখান থেকে অনেকে সেই শেষ লাইনটি বাদ দিয়ে বাকী লেখা কপি করে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। যা তথ্যবিভ্রাটের সৃষ্টি করেছে।

তাদের অযাচিত সেই কপি-পেস্ট হলো—

“দেওবন্দে মাওলানা সা’দের নিঃশর্ত রুজু! আসছেন ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে চমক নিয়ে! করবেন বায়ান ও মোনাজাত!”

বিশ্ব ইজতেমার ১ম পর্বে অংশগ্রহণ না করতে পেরে নেজামুদ্দীন ফেরত গিয়েছেন মাওলানা সা’দ । দারুল উলুম দেওবন্দের অনমনীয় অবস্থানের সাথে সাথে এবার তিনি বাংলাদেশী ওলামায়ে হাক্কানির কঠোর অবস্থানও স্বচক্ষে দেখে গেছেন। হযরতজি ইলিয়াসের রহ. খান্দানের এই মহান দাঈ ওলামাদের দৃষ্টিভঙ্গি উপলব্ধি করতে যথেষ্ট বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে বাংলদেশ থেকে ফিরেই আজকে সোজা হাজির হয়েছেন দারুল উলুম দেওবন্দের আঙ্গিনায়। এসেই মোলাকাতে মিলিত হলেন আল্লামা সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানীর দাঃবাঃ সঙ্গে। বললেন, আমি তওবা করতে এসেছি! আমার সমস্ত ভুল থেকে নিঃশর্ত তওবা করতে এসেছি! বরাহে করম ব্যবস্থা করুন!আল্লামা মাদানী একঝটকায় বুকে জড়িয়ে নিয়ে কপালে চুমু খেয়ে বললেন,

ﺍﮮ ﻣﻮﻻﻧﺎ ! ﮐﯿﺎ ﺑﭽﮧ ﺍﭘﻨﯽ ﻣﺎﮞ . ﮐﯽ ﺩﺍﻣﻦ ﮐﻮ ﭼﮭﻮﮌﮐﺮ ﺩﻭﺭ ﺭﮦ ﺳﮑﺘﺎ ﮬﮯ؟

আল্লামা মাদানী পরামর্শ দিলেন, ভাই, আপনি এখন আমার সঙ্গে সোজা হযরত মোহতামীম সাহেবের দরবারে যাবেন। তিনি যেভাবে বলবেন আমরা সেভাবেই পদক্ষেপনেবো ইনশাআল্লাহ! আর শায়খুল হাদীস মাওলানা পালনপুরী সাহেব অসুস্থ। তিনি এই মোয়ামালায় অত্যন্ত নাখোস! তবে আমরা তাঁর দরবারে এই সংবাদ নিয়ে গেলে আশাকরি তিনি সুস্থই হয়ে ওঠবেন খুশিতে!চলুন! আর দেরি নয়! ইনশাআল্লাহ আমরা এই খোশ খবরি নিয়ে আলমি ইজতেমার দোসরা পর্বেও অংশগ্রহণ করবো!

সা’দ সাহেবকে নিয়ে আল্লামা মাদানী দরবারে ইহতেমামে হাজির! আল্লামা আবুল কাসেম নোমানী দাঃবাঃ সাদ সাহেবকে দেখামাত্রই বিছানা থেকে উঠেমাওলানাকে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়লেন। উপস্থিত লোকজন সবাই আনন্দাশ্রু বিসর্জন দিতে লাগলেন! মাওলানার আগমনের খবর ইতোমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে পুরো দেওবন্দ জুড়ে! সবাই হুমড়ি খেয়ে পড়ছে দরবারে ইহতিমামে! সবার মুখে আনন্দের আভা! চোখে দীপ্ত চাহনি! বুকে বুকে মোলাকাত আর খুশির জোয়ার!দরবারে ইহতেমাম থেকে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থানে ফিরে যাবার নির্দেশ দেয়া হলো এবং এও বলা হলো, আসাতিজায়ে কেরামের মাশওয়ার পর খুব দ্রুতই ইনশাআল্লাহ মাওলানা সাদ সাহেব সকলের উদ্দেশ্যে কথা বলবেন! দফতর থেকে অচিরেই সিদ্ধান্ত জানানো হবে! সবাই মুখে একই রব নিয়ে ফিরে গেল আপন আপন অবস্থানে। দরবারে ইহতিমামে হালকা নাশতা সেরে মাওলানাকে নিয়ে দফতরে হাজির হলেন মুহতামিম সাহেব। আসাতিজায়ে কেরাম ইতোমধ্যে সবাই এসে হাজির!বাহরুল উলুম আল্লামা নেয়ামাতুল্লাহ আজমী, আল্লামা জামিল আহমদ সাহেব অসুস্থতা নিয়েও হাজির হয়েছেন! উপস্থিত হয়েছেন মুফতি আজম আল্লামা খায়রাবাদীসহ সকলেই।আল্লামা আরশাদ মাদানী এবং আল্লামা নোমানীর সংক্ষিপ্ত আলোচনার পর মাওলানা সাদ সাহেব এই মর্মে জবানবন্দি দেন যে, “আমি মৌলভী সাদ কর্তৃক আম্বিয়া (আঃ), দ্বীনী এদারা সমূহের তনখা সহ যেসকল বিষয় সম্পর্কে গলদ খেয়ালী পেশ হয়েছে সবগুলো থেকে নিঃশর্ত রুজু করছি এবং নিজামুদ্দীনের মুরুব্বীদের সঙ্গে সমস্ত দ্বন্দ্বের নিরসন ঘটিয়ে এসেছি।”সকলেই একবাক্যে আলহামদুলিল্লাহ বলে উঠলেন। তার এই রুজুনামা অচিরেই চলে আসবে!!!

মুল লেখকের স্টাটাসে এসব লেখায় পর এ কথা লেখা হয়েছে যে, “আমি স্বপ্ন দেখি, এমন হোক।”

কিন্তু এই শেষ লাইনটি বাদ দিয়ে তারা বাকী লেখা কপি করে ফেসবুকে পোস্ট করায় এটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছে। তাদের এ কাজ করা একদম উচিত হয়নি।

তবে দু‘আ ও কামনা করি, সাদ সাহেব বাস্তব পরিস্থিতি উপলব্ধি করুন। তার একার হঠকারিতায় যেন দ্বীনের এ বিশাল খিদমত আর কোন ফাসাদ ও জঞ্জালের সন্মুখীন না হয়। দু‘আ করি, তিনি যেন দ্বীনের সহীহ পথ বুঝে সে পথে একনিষ্ঠভাবে পরিপূর্ণরূপে তাওবা করে ফিরে আসেন। তিনি নিজেও বাঁচুন, বিশ্বের বৃহৎ এ দাঈ জামা‘আতকেও বাঁচান। আল্লাহুম্মা আমীন।

মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী

সূত্র: আদর্শ নিউজ

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Pin It on Pinterest

Share This