হেলান দিয়ে পানাহারের ব্যাপারে শরীয়তের দৃষ্টিভঙ্গি কি? দলিলের আলোকে জানালে…

প্রশ্ন

হেলান দিয়ে পানাহারের ব্যাপারে শরীয়তের দৃষ্টিভঙ্গি কি? দলিলের আলোকে জানালে খুশি হব।

উত্তর

খানা পিনার সময় হেলান না দেওয়া সুন্নত। স্বাভাবিকভাবে বসে খেতে পারে এমন সুস্থ ব্যক্তির জন্য হেলান দিয়ে বা কিছুতে ঠেস দিয়ে পানাহার করা অনুত্তম। হাদীস শরীফে আবু জুহাইফা রা. থেকে বর্ণিত হয়েছে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, আমি হেলান দিয়ে আহার করি না। (সহীহ বুখারী, হাদীস : ৫৩৯৮)

অন্য একটি হাদীসে আবদুল্লাহ ইবনে আমর রা. তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে স্বাভাবিক অবস্থায় কখনো হেলান দিয়ে আহার করতে দেখা যায়নি। (সুনানে আবু দাউদ ৪/২৮৭)

অন্য এক হাদীসে এসেছে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, আমি আল্লাহ তাআলার গোলাম। আমি সেভাবেই আহার করি যেভাবে একজন গোলাম আহার করে এবং আহারের জন্য সেভাবেই বসি যেভাবে একজন গোলাম বসে। (কিতাবুয যুহদ পৃ. ১১)

অবশ্য অসুস্থতা বা দুর্বলতার কারণে হেলান দিয়ে পানাহার করার অবকাশ রয়েছে। কেননা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ক্ষুধার্ত অবস্থায় দুর্বলতার কারণে হেলান দিয়ে আহার করেছেন এ কথা হাদীস দ্বারা প্রমাণিত। আনাস রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সামনে খেজুর পেশ করা হল তখন আমি তাকে ক্ষুধায় দুর্বল হওয়ার কারণে হেলান দিয়ে আহার করতে দেখেছি।

(শামায়েলে তিরমিযী, পৃ. ১০; সহীহ মুসলিম, হাদীস : ৫২৯০); ফাতহুল বারী ৯/৪৫২; রদ্দুল মুহতার ৬/৭৫৬; উমদাতুল কারী ২১/৪৪

উত্তর দিয়েছেন : মাসিক আল-কাওসার

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Pin It on Pinterest