হে হিন্দুস্তানের নওজোয়ানেরা, গাজওয়াতুল হিন্দের জন্য প্রস্তুত হও

(হিন্দুস্থানের যুদ্ধ) রাসুলুল্লাহ ( সাঃ) এর প্রতিশ্রুত “ গাযওয়াতুল হিন্দ ” কি অতি নিকটে ??? “গাযওয়াতুল হিন্দ” বলতে ইমাম মাহদি এবং ঈসা (আঃ) এর আগমনের কিছুকাল আগে অথবা সমসাময়িক সময়ে এই পাক-ভারত-বাংলাদেশে মুসলিম ও কাফিরদের মধ্যকার সংগঠিত যুদ্ধকে বুঝায়। “গাজওয়া” অর্থ যুদ্ধ, আর “হিন্দ” বলতে এই উপমহাদেশ তথা পাক-ভারত-বাংলাদেশসহ মায়ানমার, শ্রীলঙ্কা,নেপাল,ভু টানকে বুঝায়। এবং বর্তমানে […]

ইমাম বুখারী (রহঃ) এর কাঠগড়ায় কথিত আহলে হাদীস সম্প্রদায়

বিতির, তাহাজ্জুদ, নফল ইত্যাদি প্রতিটি নামাযই আলাদা ইমাম বুখারী রহঃ এর নিকট বিতির নামায, তাহাজ্জুদ নামায এবং নফল নামায স্বতন্ত্র বিষয়। বুখারী রহঃ বুখারী শরীফের ১ম খন্ডের ১৩৫ নং পৃষ্ঠায় একটি বাব কায়েম করেছেন। যার শিরোনাম হল, ابواب الوتر তথা বিতরের অধ্যায়সমূহ। উক্ত বাবের উপর বুখারী শরীফের বিখ্যাতা ব্যাখ্যাকার আল্লামা ইবনে হাজার আসকালানী রহঃ লিখেনঃ […]

কুরআনের কয়েকটি বিশেষ সূরা ও আয়াতের ফজীলত

সূরা ফাতিহা ১) আবু সাইদ রাফে’ ইবনে মুআল্লা (রাঃ) হতে বর্নিত, তিনি বলেন, একদা রাসুলুল্লাহ (সাঃ) আমাকে বললেন, “মসজিদ থেকে বের হবার পূর্বেই তোমাকে কি কুরআনের সব চেয়ে বড় (মাহাত্ম্যপূর্ণ) সূরা শিখিয়ে দেব না?” এই সাথে তিনি আমার হাত ধরলেন। অতঃপর যখন আমরা বাহিরে যাওয়ার ইচ্ছা করলাম, তখন আমি নিবেদন করলাম, “ইয়া রাসুলুল্লাহ (সাঃ)! আপনি […]

রাসূল সা. বর্ণিত একটি হাদীসের অবস্থার সাথে মিলে যাচ্ছে সৌদি সংকট!

রাসূল সা. বর্ণিত একটি হাদীসের সংকটময় অবস্থার সাথে মিলে যাচ্ছে না তো এই সংকট? হযরত ছওবান (রা.) থেকে বর্ণিত, আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘তোমাদের ধনভাণ্ডারের (রাজত্বের জন্য) নিকট তিনজন বাদশাহর সন্তান যুদ্ধ করতে থাকবে। কিন্তু ধনভাণ্ডার (রাজত্ব) তাদের একজনেরও হস্তগত হবে না। তারপর পূর্ব দিক (খোরাসান) থেকে কতগুলো কালো পতাকাবাকী দল আত্মপ্রকাশ […]

হাদীসে কুদ্‌সী!

হাদীসে কুদ্‌সী কী? হাদীস হচ্ছে— আল্লাহর রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া-সাল্লাম)-এর মুখনিঃসৃত বাণী ও কর্ম এবং রাসূল রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া-সাল্লাম) কর্তৃক সাহাবায়ে কেরামগণের (রদ্বিয়াল্লাহু আনহুম) বক্তব্য ও কর্মের অনুমোদন। রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া-সাল্লাম)-এর কথা, কাজ ও অনুমোদনের বিপরীত নয়, সাহাবায়ে কেরামের এমনসব কথা, কাজ ও অনুমোদন হাদীসের মধ্যে গণ্য। হাদীসসমূহের মধ্যে এমন কতগুলো হাদীস রয়েছে […]

কবরের আজাব থেকে মুক্তির আমলগুলি কি?

১। প্রতিরাতে সুরাহ মুলক তিলায়াত করা (কুরআন দেখে দেখে বা মুখস্ত যে কোন ভাবেই হোক)। রাসূল (সাঃ) বলেন : “যে ব্যাক্তি প্রত্যেক রাতে তাবারকাল্লাযী বিইয়াদিহিল মুলক (সুরাহ মূলক- ৬৭ নাম্বার সুরা) পাঠ করবে এর মাধ্যমে মহিয়ান আল্লাহ্ তাকে কবরের আযাব থেকে রক্ষা করবেন । সাহাবায়ি কিরাম বলেন, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) এর যুগে আমরা এ সুরাহ টিকে […]

যে ব্যক্তি আল্লাহর নামে চায়, তোমরা তাকে প্রদান করো

আমাদের দেশে ভিক্ষুকরা তাদের ভিক্ষাবৃত্তির ক্ষেত্রে প্রায়শই আল্লাহর নাম ব্যবহার করে। দুনিয়ার সামান্য পরিমাণ তুচ্ছ সম্পদ অর্জনের জন্য আল্লাহর নাম বিকিয়ে দেয়া যে কতটা গর্হিত কাজ তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে কেউ যদি এভাবে আল্লাহর ওয়াস্তে কোনো কিছু চেয়েই ফেলে, তবে সেক্ষেত্রে আপনার কী করণীয়? রাসুলুল্লাহ সা. বলেন, ‘যে ব্যক্তি আল্লাহর নামে […]

পরিবারের জন্য যা কিছু খরচ করেন, শুধু সওয়াবের আশায় করলে সেটা দান হিসাবে লিখিত হবে

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, মানুষ স্বীয় পরিবার-পরিজনের জন্য পুণ্যের আশায় যখন ব্যয় করে তখন সেটা তাঁর জন্য সদাকাহ (দান) হয়ে যায়। (বুখারি-৪০০৬,) আলহামদুলিল্লাহ্, পরিবারের ভরণপোষণ সহ সমস্ত দায়িত্ব পালন করা আমাদের কর্তব্য কিন্তু তারপরেও এই কাজ যদি আমরা সওয়াবে নিয়ত নিয়ে করি তবে সবটাই সদকাহ হিসাবে গণ্য হবে, এটা আল্লাহ তা”লার বড় অনুগ্রহ বান্দার […]

২০ মিনিটে ১৯ বার কোরআন খতম করার ছাওয়াব!

সূরা ফাতিহা : তিনবার তিলাওয়াত করলে, কোরআন কারীম দুই বার খতম করার ছাওয়াব। (তাফসীরে মাযহারী, ১ম খন্ড, পৃষ্ঠা-১৫) সূরা ফাতিহা- بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ (1) الْحَمْدُ لِلَّهِ رَبِّ الْعَالَمِينَ (2) الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ (3) مَالِكِ يَوْمِ الدِّينِ (4) إِيَّاكَ نَعْبُدُ وَإِيَّاكَ نَسْتَعِينُ (5) اهْدِنَا الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ (6) صِرَاطَ الَّذِينَ أَنْعَمْتَ عَلَيْهِمْ غَيْرِ الْمَغْضُوبِ عَلَيْهِمْ وَلَا الضَّالِّينَ […]

সকল মুসীবত থেকে হিফাজতের নববী আ’মাল।

সকাল সন্ধ্যায় মাত্র তিনবার করে পড়তে হবে। ৩বার পড়তে সময় লাগে মাত্র ১৫-২০ সেকেণ্ড। হযরত ওসমান ইবনে আফ্ফান (রাযি:) বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে এই এরশাদ করিতে শুনিয়াছি যে, কেহ এই কালেমাগুলি সন্ধ্যায় তিনবার পাঠ করিলে সকাল পর্যন্ত এবং সকালে তিনবার পাঠ করিলে সন্ধ্যা পর্যন্ত হঠাৎ কোন মুসীবত তাহার উপর আসিবে না। (কালেমাগুলি এই)। […]

ইয়া রাসূলাল্লাহ! (সাল্লাল্লাহু আ: ওয়া:) মুক্তি পাওয়ার রাস্তা কি?

হযরত উকবা ইবনে আমের (রাযিঃ) বর্ণনা করেন যে, আমি আরয করিলাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ! মুক্তি পাওয়ার রাস্তা কি? তিনি এরশাদ করিলেন, নিজের জিহব্বাকে আয়ত্বে রাখ। নিজের ঘরে থাক (অনর্থক বাহিরে ঘোরাফিরা করিও না) আর নিজের গুনাহের উপর ক্রন্দন করিতে থাক। (তিরমিযী-২৪০৬) পুরুষরাতো মাদ্রাসা-মসজিদ তা’লীম-তাবলীগ ও ওলামায়ে কিরামের বয়ান থেকে এবং তাদের স্মরণাপন্ন হয়ে অনেক কিছু অর্জন […]

হযরত মুয়াজ (রাঃ) কে দেওয়া রাসুল (সাঃ) এর ১০টি উপদেশ

১. যদি কখনো তোমাকে হত্যা কিংবা পুড়িয়ে ফেলাও হয়, তবুও তুমি আল্লাহর সাথে কাউকে শরীক করবে না। ২.  তোমার পিতামাতা ,পরিবার- পরিজন ধনসম্পদ হতে তাড়িয়ে দিলেও তাদের অবাধ্য হবে না। ৩. ইচ্ছাকৃতভাবে কখনোই ফরয নামাজ ত্যাগ করবেনা । স্বেচ্ছায় ত্যাগ করলে তার ব্যাপারে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের কোন দায়িত্ত্ব থাকবে না। ৪. কিছুতেই শরাব (হারাম […]

জাহান্নামের আগুন হইতে বাচিবার জন্য ঢাল লইয়া লও। এবং জান্নাতের বাগানে অধিক বিচরণকারী হইয়া যাও।

হযর আবু হুরায়রা (রাযি:) বর্ণনা করেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের নিকট আসিলেন এবং এরশাদ করিলেন, দেখ, নিজের বাঁচার জন্য ঢাল লইয়া লও। সাহাবায়ে কেরাম (রাযি:) জিজ্ঞাসা করিলেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! কোন দুশমন আসিয়া গিয়াছে কি? তিনি এরশাদ করিলেন, জাহান্নামের আগুন হইতে বাঁচিবার জন্য ঢাল লইয়া লও। سبـــــــــــحان الله, الـــــــــــــــح مد الله, لآ الــه الا […]