Shafayat Hossain
  • 2
Begginer

নামায

  • 2

জনাব, সাধারনত জাপানে হানাফি মুক্তাদি শা’ফি ইমামের পিছনে নামায পড়ে , আর তাতে যখন শা’ফি ইমাম রুকু থেকে উঠে মুনাজাত করে কিংবা ভিন্ন আমল করে এমতাবস্থায় হানাফি মুক্তাদি  কি করবে?

দলিল সহ জানালে উপকৃত হবো। জাযাকাল্লাহ।।

আপনার উত্তর যোগ করুন

উত্তর দিতে লগিন করুন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

  1. যদি অন্য মাজহাবের ইমামের ব্যাপারে সুনিশ্চিতভাবে জানা থাকে যে, তিনি নামাজের ফরজসমূহ আদায়ের ক্ষেত্রে হানাফি মাজহাবের প্রতিও খেয়াল রাখেন তাহলে একাকি নামাজ পড়ার চেয়ে তার পেছনে ইকতিদা করাই উত্তম। আর যদি জানা থাকে যে, তিনি ফরজসমূহের ক্ষেত্রেও হানাফি মাজহাবের প্রতি খেয়াল রাখেন না তাহলে তার পেছনে ইকতিদা করা যাবে না। আর যদি কিছুই জানা না যায়, তবে এমন ব্যক্তির ইকতিদা করা মাকরূহ হলেও তার পেছনে জামাতে নামাজ পড়াই উত্তম। তবে শর্ত হলো, মুক্তাদির মাজহাব অনুযায়ী ইমাম সাহেব থেকে নামাজ ভঙ্গের কোনো কারণ (যেমন, শরীরের কোনো স্থান হইতে রক্ত, পুঁজ বা পানি বের হয়ে গড়িয়ে পড়া ইত্যাদি) প্রকাশ না পাওয়া। এমন কিছু প্রকাশ পেলে মুক্তাদির নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে।

    উল্লেখ্য, বিতির নামাজে অতিরিক্ত একটি শর্ত রয়েছে। তাহলো ইমাম সাহেবের তৃতীয় রাকাতের আগে সালাম না ফেরানো। অর্থাৎ ইমাম যদি দ্বিতীয় রাকাতের মাথায় সালাম ফেরায় তবে তার পেছনে ইকতিদা করা জায়েজ হবে না।

    দলিলসমূহ:

    ফাতাওয়ায়ে শামী ৪/২৪৮

    وإن تيقن المراعاة لم يكره أو عدمها لم يصح وإن شك كره. (الدر المختار) أي المراعاة في الفرائض من شروط وأركان في تلك الصلاة، وإن لم يراع الواجبات والسنن.

    হাশিয়াতুত তহতবী আলাদ্দুর ১/২০৫

    قال بدر الدين العيني رحمه الله تعالى: يجوز الاقتداء بالمخالف وكل بر وفاجر …….. ما لم يتحقق من إمامه مفسد لصلاته في اعتقاده، وإذا لم يوجد غير المخالف فلا كراهة في الاقتداء به والاقتداء به أولى من الانفراد على أن الكراهة لا تنافي الثواب.

    আরও দেখুন:

    রদ্দুল মুহতার ৫/১২০

    আল বাহরুর রায়েক ৪/২২৮

    • 0