Anonymous
  • 0

এই অতিরিক্ত টাকা নেয়া কি সুদ হিসাবে হবে? নাকি হালাল হবে।

  • 0

আসসালামুআলাইকুম

 

আমি একটা প্রতিষ্ঠানে কাজের জন্য টাকা রেখেছিলাম। টাকা টা আমি যখন ইচ্ছা তাদের থেকে নিয়েনিতে পারতাম এমন সুবিধা ছিলো। আর টাকা নেয়ার সময় তারা কিছু ফি নিতো সেটা অল্প পরিমাণ। তাদের কাছে শুধু কাজের জন্য টাকা রাখাছিলো তাদের থেকে লাভ/সুদ নেয়ার জন্য না।

 

বর্তমানে তাদের কাছে ফান্ড না থাকায় বা তাদের ব্যবসায় ক্ষতির কারণে আমাদের টাকা দিতে পারছে না। তারা সুদী ব্যবসা ও করে। এখন তারা আমাদের তাদের একটা নিয়ম মানতে বাধ্য করেছে।

 

তাদের নিয়ম হলো যারা তাদের কাছে আগে টাকা রেখেছে তাদের মধ্যে অনেকের টাকা তাদের দেয়ার মতো সামর্থ্য না থাকার কারনে অনেকের টাকা তারা আটকিয়ে দিয়েছে। এবং তারা একটা নিয়ম করেছে তারা আমাদের টাকার 200% মুনাফা দিবে। ব্যাপার টা সুদের মতোই মনেহচ্ছে কিন্ত তাদের নিয়ম টা যদি একটু খুলে বলি।

 

ধরেন, আমার ১০০ টাকা তাদের কাছে ছিলো। এখন তারা আমাকে ৩০০ টাকা দিবে। প্রতিদিন এই ৩০০ টাকার 0.01% করে দিবে। যেটা আমার পেতে ২০-৩০ বছর সময় লাগতে পারে। এবং তাদের কিছু শর্ত আছে সেটা মানলে প্রতিদিন 0.01% থেকে বাড়তে পারে।

 

এখন তারা টাকা আটকিয়ে দিয়েছে বলে বাধ্য হয়ে তাদের নিয়ম মানতে হচ্ছে। তারা 0.01% করে প্রতিদিন দিবে যতদিন তারা দিতে পারবে। যদি তারা দেওলিয়া হয়েযায় তাহলে আর দিবে না বা টাকা পাবার সম্ভাবনা নাই বললেই চলে। আর যদি তাদের কাছে দেয়ার মতো সামর্থ্য থাকে তাহলে দিবে।

 

এখন আমাদের টাকা তাদের ব্যবসার সাথে জড়িত। তারা যদি দেওলিয়া হয়েযায় তাহলে আমাদের টাকাও গেছে। এখন এই 200% মুনাফা নেয়া টা আমার জন্য সুদ হবে বা এটা কি আমি নিতে পারবো?

আপনার উত্তর যোগ করুন

উত্তর দিতে লগিন করুন।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.