রেজিস্টার

Sign Up to our social questions and Answers Engine to ask questions, answer people’s questions, and connect with other people.

লগিন

Login to our social questions & Answers Engine to ask questions answer people’s questions & connect with other people.

Forgot Password

Lost your password? Please enter your email address. You will receive a link and will create a new password via email.

Please briefly explain why you feel this question should be reported.

Please briefly explain why you feel this answer should be reported.

Please briefly explain why you feel this user should be reported.

অনুচ্ছেদ : বদর যুদ্ধ সম্পর্কে রচিত বিভিন্ন কবিতা

অনুচ্ছেদ : বদর যুদ্ধ সম্পর্কে রচিত বিভিন্ন কবিতা

চলে আসত, তবে তারা মুক্ত “হয়ে যেত এবং মুহাজিরদের যে সুযোগ-সুবিধা ও অধিকার ছিল,
তারাও তা লাভ করত ৷ এরপর বর্ণনাকারী (আতা) চুক্তিবদ্ধ ঘৃশরিকদের প্রসংগে মুজাহিদের
অনুরুপ হড়াদীছ বর্ণনা করেছেন যা এখানে হুবহু বর্ণনা করা হল ৷ কোন হাবৃবী মুশবিক
মহিলা হিজরত করে আসলে ঋতুস্রাব হওয়া ও পুনরায় পাক না হওয়া পর্যন্ত তার কাছে
বিবাহের প্রস্তাব দেয়া যাবে না ৷” এ কথার অনিবার্য দ ৷বী হল একবারের ঋতুম্রার দ্বারা তার
জরায়ু পবিষ্কা র হয়ে যাবে ৷ তিনবার ঋতুস্রাব দ্বারা ইদ্দত পালন করার প্রয়োজন নেই ৷” একদল
আলিম এই মত গ্রহণ করেছেন ৷ অনুরুপ “বিবাহের পুর্বেই যদি তার স্বামী হিজরত করে আসে
তবে তাকে ঐ স্বামীর কাছেই ফিরিয়ে দেয়া হবে” এই বাক্যটির দাবীও এই যে ইদ্দত ও
জরায়ু পরিষ্কার হওয়ার সময় অতিবাহিত হওয়ার পর যতদিনপর্যম্ভ অন্যত্র বিবাহ না হবে
ততদিনের মধ্যে স্বামী হিজরত করে আসলে তার কাছেই মহিলাকে ফেরত দেয়া যাবে ৷
রাসুলুল্লাহ্র কন্যা যযনবের ঘটনা থেকে এ কথারই প্রমাণ মিলে একদল আলিম এ মতই পোষণ
করেন ৷

অনুচ্ছেদ
বদর যুদ্ধ সম্পর্কে রচিত বিভিন্ন কবিতা
বদর যুদ্ধ সম্পর্কে যে সব কবিতা রচিত হয়েছে তার মধ্যে ইবন ইসহড়াক হযরত হামযা

ইবন আবদুল মুত্তালিবের নিম্নলিখিত কবিতাটি উল্লেখ করেছেন ৷ কিন্তু ইবন হিশাম একে
হামযার কবিতা বলতে অস্বীকার করেছেন ৷

হযরত হামযার কবিতা

(অর্থ) মি কি এমন বিষয়ের প্রতি লক্ষ্য করনি যা যুগের ব্লিস্মৃয় হিসেবে গণ্য ? আর মৃত্যুর

জন্যে রয়েছে বিভিন্ন প্রকার স্পষ্ট উপকরণ ৷
আর এ ঘটনা এ ছাড়া আর কিছুই ছিল না যে ঐ সম্প্রদায়কে উপদেশ থেকে উপকৃত হতে

বলা হয়েছিল, কিন্তু তারা অবাধ্যত৷ ও অস্বীকার করার মাধ্যমে উপদেশদাতার বিরুদ্ধাচরণ
করেছে ৷

ফলে সন্ধ্যাকালে তারা সদল বলে বদরের দিকে অগ্রসর হল এবং বদর প্রাতরের পাথুরে
ভুমিতে স্থায়ীভাবে অ টক ৷পড়ল
আমরা তো কেবল বাণিজ্য কাফিলার জন্যেই বেবিয়েছিলাম ৷ এ ছাড় আর কোন উদ্দেশ্য
আমাদের ছিল ন ৷৷ পক্ষান্তরে তারা আমাদের দিকে এগিয়ে এত্তুল৷ ৷ ফলে ঘটনাক্রমে তাদের
সাথে আমাদের সংঘর্ষ বেধে গেল ৷

আর যখন সংঘর্ষ বেধে গেল, তখন তাদের প্রতি ধুসর বর্ণেরতীক্ষ্ণ তীর নিক্ষেপ করা ছাড়া
আমাদের আর কোন পতন্তর ছিল না ৷

আর মন্তক ছোদ্নকারী অলংকার খচিত ঝকঝকে সাদা ধারাল তরবারি দ্বারা আঘাত করা
ব্যতীত কোন উপায় ছিল না ৷

আর পখভ্রপথভ্রষ্ট উত যাকে আমরা মাটির সাথে মিশিয়ে দিই এবং শায়বাকে অন্ধকুপের
মধ্যে নিহত দের মাঝে উপুড় করে নিক্ষেপ করি ৷

তাদের যে সব মিত্রর৷ মাটির সাথে মিশে গিয়েছে, আমরও সেই সাথে মাটির সাথে মিশে
গিয়েছে ৷ ফলে বিলাপকারিণীদের আমার আন্তীন আমরের শোকে ছিড়ে-ফেটে গিয়েছে ৷

আস্তীন বিদীর্ণকারী এসব মহিলা হচ্ছে ফিহ্র গোত্রের শাখা লু-আই ইবন পানির-এর স্ল্লাম্ভ
মহিলাদের অন্তর্ভুক্ত ৷

এরা এমন এক সম্প্রদায়ের লোক, যারা নিজেদের ভ্রান্তপথে চলর কারণে নিহত হয়েছে ৷
তারা শেষ পর্যন্ত ঝাণ্ডা ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে এবং পরাজয়বরণ করা পর্যন্ত তাদের
সাহায্যার্থে কেউ এগিয়ে আসেনি ৷

তাদের সে ঝাণ্ডা ছিল ভ্রষ্টতা ৷র প্রতীক ৷ আর তাদের নেতৃত্ব দিচ্ছিল স্বয়ং ইবলীস ৷ অবশেষে
সে তাদের সাথে বিশ্ব৷ সঘাতকতা করে ৷ যে খবীছ, বিশ্বাসঘ৷ ৷তকতা করা তার নীতি ৷

যখন সে মুসলমানদের সাহায্যার্থে ফেরেশত ৷দের অবতরণ স্পষ্টভাবে দেখতে পেল, তখন
সে বলল, আমি তোমাদের থেকে পৃথক হয়ে গেলাম, আজ আর ধৈর্য-ধারণ করার ক্ষমত ৷
আমার সেই ৷

কেননা, আমি যা দেখতে পা ৷চ্ছি তােমরা তা দেখছো না ৷ আমি আল্লাহর শা ৷স্তির ভয় করছি,
কারণ, আল্লাহ পরাক্রমশালী ৷

সে তাদেরকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে, আর তারা তাতে আটকা পড়েছে ৷ সে যে
কথাটি তাদেরকে জানায়নি, ঐ কথাটি সে ভাল করেই জানতে৷ ৷

যে প্ৰভাতকালে তারা বদরের ক্যুপ পৌছায়, তখন তাদের সংখ্যা ছিল এক হাযার ৷ অন্য
দিকে আমাদের দলে ছিল শুভ্র রং বিশিষ্ট নব উটের ন্যায় তেজােদীপ্ত তিনশ’ যোদ্ধ৷ ৷

আর আমাদের মাঝে ছিল আল্লাহর প্রেরিত সৈনিকগণ ৷ র্তার৷ বদরে আমাদেরকে শত্রুদের
মুকাবিলায় সাহায্য করছিলেন ৷ এরপর এ কথা সর্বত্র আলোচিত হতে থাকে ৷

জিবরাঈল ফেরেশতা আমাদের পতাকড়াতলে থেকে তাদেরকে এক সংকীর্ণ স্থানে এমন
কঠে৷ ৷র আঘা ৷ত হানেন যে, তাদের উপর দিয়ে মৃতু ভ্যুর হিম শীতল বায়ু প্রবাহিত হতে থাকে ৷

এই কবিত ৷র জবাবে রচিত হারিছ ইবন হিশামের কবিতার কথা ইবন ইসহাক উল্লেখ
করেছেন ৷ আমরা ইচ্ছাকৃতভাবে তা বাদ দিয়েছি ৷

হযরত আলী (না)-এর কবিতা

বদর যুদ্ধ সম্পর্কে আ ৷লী ইবন আবৃত তালিব নিম্নলিখিত কবিতা রচনা করেন ৷ অবশ্য ইবন

হিশাম একে অস্বীকার করেছেন ৷

Related Posts

Leave a comment

You must login to add a new comment.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.