তাবূকের পথে খেজুর কান্ডে হেলান দিয়ে রসূলুল্পাহ (সা)- এর খুতৰা দান প্রসংগ

তাবুকের পথে খেজুর কাণ্ডে হেলান দিয়ে
রাসুলুল্লাহ্ (সা) — এর খুতবা দান প্রসৎগ

ইমাম আহমাদ (র) রিওয়ায়াত করেছেন, আবুন নাঘৃর হাশিম ইবনুল কাসিম, ইউনুস ইবন
মুহাম্মদ আল যুআদ্দিব ও হাজ্জাজ ইবন মুহাম্মদ (র) আবু সাঈদ আল থুদরী (রা ) থেকে
বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেছেন, রড়াসুলুল্লাহ (সা) তাবুক অভিযান কালে থু৩ তব৷ দিলেন ৷ তখন
তিনি একটি খেজুর কাণ্ডে (হলান দিয়ে বলেছিলেন ৷ থুতবড়ায় তিনি বললেন,

আমি কি তােমাদেরকে সর্বোত্তম ব্যক্তি ও সর্ব নিকৃষ্ট ব্যক্তি সম্পর্কে অবহিত করব না ? যে
ব্যক্তি তার ঘোড়ার পিঠে কিংবা তার উটের পিঠে কিংবা পদব্রজে আমৃত্যু আল্লাহর পথে জিহাদ
করে যায় সে সঝোওম ব্যক্তিদের অড়র্ভু জ; আর যে যে পরােয়া পাপাচাবী ব্যক্তি আল্লাহর
কিতাব পড়ার পরেও তার কোন কিছুরণ্ তায়াক্কা করে না , সে সর্ব নিকৃষ্টদের অন্তর্ভুক্ত ৷ নাসাঈ
(র) এ হাদীসখানি কুতায়ব৷ (র) থেকে উল্লেখিত ননদে রিওয়ায়াত করেছেন ৷ তিনি বলেছেন,
এ সনদে অন্যতম বাৰী আবুল খাত্তাব সম্পর্কে আমি অবগত নই ৷

রায়হড়াকী (র) ইয়াকুব ইবন মুহাম্মদ আর যুহরী (র) সুত্রে উকব৷ ইবন আমির আল জুহানী
(রা) থেকে রিওয়ায়াত করেছেন ৷ তিনি যুদ্ধে আমরা রাসুলুল্লাহ (সা)এব সহগামী
হলাম ৷ পথে কােন এক মনযিলে রাসুলুল্লাহ (সা ) ঘুমিয়ে পড়লেন এবৎ সকালের সুর্য এক বন্ধুর
বরাবর উচু হওয়ার আগ পর্যন্ত তার চো ৷খ খুলল না ৷ এ স্যার জেগে উঠা তই তিনি বললেন, হে
বিলালৰু আমাদের পক্ষে কজরের ওয়াক্তের প্ৰতি নজর বাখবে এ কথা কি তোমাকে আগেই
বলে রাখিনি ? ৰিলাল (বা) বললেন, ইয়৷ রাসুলাল্লাহশু ঘুম আমাকে তেমনই পেয়ে বসেছিল,
যেমনটহ্অ আপনাকে পেয়ে বসেছিল ৷ বর্ণনাকারী বলেন, তখন রাসুলুল্লাহ (সা) জ তার যে অবস্থান
ক্ষেত্র ছেড়ে একটু সরে এসে সেখানে স্যলাত আদায় করলেন এ বা দিনের অধিকাৎ শ সময় ও
রাতম্ভব স্ফর করে সকাল রেলা তাৰুকে উপনীত হলেন ৷ সেখানে যথাথোগ্য ভাষায় আল্লাহ্
পাকেরহ প্হ্ ও ছানা পাঠ করার পর তার তাতিভাবণে তিনি বললেন,

তারপর লোক সকল সর্বাধিক সত্য ভাষণ আল্লাহর কিতাব; সর্বাধিক নির্ভরযোগ্য অবলম্বন
হচ্ছে তাকওয়ার কালিম; শ্রেষ্ঠ দীন হচ্ছে ইব্রাহীম (আ) এর দীন; শ্রেষ্ঠ সুন্নত হচ্ছে মুহাম্মদ
(না)-এর সুন্নত; সর্বাধিক অভিজাত বাহন হচ্ছে আল্লাহর যিকর ৷ সর্বোত্তম কাহিনী হচ্ছে এ
আলকুরআনঃ ৷ সর্বাধিক গুরুতুপুর্ণ ব্যাপার হচ্ছে আল্লাহর নির্ধারিত ফরজসমুহ এবং সর্ব
নিকৃষ্ট৩ তম ব্যাপার হল ৰিদআত ব নব উদ্ভ দাবিত ব্যাপারসমুহ সুন্দরতম অর্দশ নবীপণের
আদর্শ সর্বাধিক মর্যাদার মৃত্যু হচ্ছে শহীদপণের মৃঙু >বম৩ম ৩জ্যোহু হল হিপ য়ওেব পরে
পােমরাহী উত্তম আমল তা, যা বলোঃং বন্ব ৬ওম হপায় য়৩ তা, যা অনুসৃত হয় জঘন্যতম
অন্ধতু, অত্তরের অন্ধতু ৷ উপরের (বা৩ ব) হ৩ ণঢেব (গ্র ২৩ র ) হ ওেব ঢেয়ে উত্তম য স্বল্প
ও পরিমিত, তা পাফলতি সৃষ্টিকারী অধিকের চাইতে উত্তম ৷ মৃত্যুর লগ্রে অপারগতার অজুহাত
হচ্ছে নিকৃষ্টতম অজুহাত কিয়মত দি ব পের ৩ণু৩প নিনু১ষ্ট৩ম ৩ণু৩প ণোব১ সমাজে এমন
কিছু ল্যেকও রয়েছে, যার বিলন্বে ছাড়া জুমুঅ জামাঅতে আসে ন ৷

এমন কিছু ল্যেকও রয়েছে, যারা গাফলতি করে আল্লাহর নাম নেয় না ৷ মিথ্যাবদী রসনা
ক্ষান্যতম পাপের অকর ৷ মনের প্ৰচুইে সর্বোত্তম প্রাচুর্য ৷ উত্তম পাথেয় হল তাকওয় ৷
হিকমাত ও প্রজ্ঞার শীর্ষে হল মহীয়ানশ্গয়ীয়ান আল্লাহর ভয় ৷ হৃদয় মঝে গ্রথিত বিষয়সমুহেব
মাঝে উত্তম হল ইয়কীন ও অবিচল বিশ্বাস ৷ দ্বিধা ও সংশয় হচ্ছে কুফর পর্যায়ভুক্ত ৷ মতের
জ্জন্যে উচ্চ স্বরে ৰিলাপ হচ্ছে জ হিলিয়্যাতের কাজ আমনত (গণীমঙে তর সাল থেকে) চুরি ও
জ্বাহোন্নন্মের খড়কুটো স্বরুপ অশ্লীল বনবৰু>র্চা হব ল সে ব বশ জ মদ হচেছ সকল পাপের
আঃ নয়ীশ শয়তানের ফাদ যৌবন উন্মাদন বিংশষ নিকৃষ্ট৩ তম উপার্জন সুদের উপার্জন ৷
ৰিকুষ্টতম উদরপুর্তি ইয়াতীমের সম্পদ গ্রাস ৷৩ ভাগ্যবান সে, যে অন্যের অবস্থা দেখে শিক্ষা

গ্রহণ করে ৷ দৃর্ডাগা সে , যে মাতৃপর্ভেহ দুর্তাগা ৷ তোমাদের প্ৰভ্রুতাকের ণ্শব পতব্য তার হাত’
আসল বিচার্য হচ্ছে আথেরাত (অর্থাৎ আখিরৰ্তের মুক্তি বা শাস্তি) ৷ আমলের মানদণ্ড তাহৃ
সমাপ্তিস্তর ৷ নিকৃষ্টতন বিবৃতি হচ্ছে মিথ্যা বিবৃতি ৷ মা আসবেই, তা নিকটবর্তী ৷ ঈমানদারয়ে
গালগােলি করা ফালেকী কাজ ৷ ঈমানদারের সাথে হানড়াহানি কুফরী কাজ ৷ (গীবত করে
ঈমানদারের থেম্পোত খাওয়া আল্লাহর অবাধ্যতদ্যেরুপ ৷ ঈমানদারের সম্পদের মর্যাদা তাহ্
রক্তের মর্যাদাতুল্য ৷ অহেতুক আল্লাহ্র নামে কসম করার দুঃসাহসীকে আল্লাহ্ মিথ্যাবড়ার্দ
প্রতিপন্ন করেন ৷ তার কাছে মাপফিরাত কড়ামনাকত্বৰীকে তিনি ক্ষমা করেন ৷ মার্জনাকাৰীৰে
আল্লাহ্ও মার্জনড়া করেন ৷ ত্রেণর সম্বরনকাৰীকে আল্লাহ্ তার বিনিময় দেন ৷ বিপয়ুঢ
ধৈর্যধারনকড়ারীকে আল্লাহ্ গ্রতিদান দেন ৷ খ্যাতি সন্ধানীকে আল্লাহ্ (পার্থিব) খ্যাতি দিয়ে দেন
সবরকত্ত্ববীকে আল্লাহ্ দ্বিগুণ দেন ৷ যে আল্লাহর নাফরমানী করে, আল্লাহ্ তাকে আমার দেন
ইয়া আল্লাহ্! আমাকে এবং আমার উম্মতকে মাফ করুন ৷ ইর৷ আল্লাহ্৷ আমাকে এবং আমাহৃ
উনতেকে ক্ষমা করুন ৷ ইয়া আল্লাহ্শু আমাকে এবং আমার উম্মতকে মাণফিরাত করুন ৷ ( কথাটি তিনি :িনরার বললেন ৷ ৩ারপর বললেন, “আমি আমার জন্য এবদ্ব
ৰুতামাদের জন্য মাপফিরাত কামনা করছি ৷ ” এ হাদীসখড়ানি পরীব পর্যায়ের এবং এটা কিছুট
মুনকার পর্যায়ের ৷ এবং এর সনদে দুর্বলতড়া বিদ্যমান ৷ অড়াল্লাহ্ই সমধিক অবগত ৷

আবু দাউদ (র) বলেন, আহমাদ ইবন সাঈদ আল হামদানী ও সুলারমান ইবন দাউদ (রট্রু
সাঈদ ইবন পাযাওয়ান (বা) তার পিতা থেকে বর্ণনা করেছেন যে, তিনি হত্রুজ্জর সফরে তাবুবে
অবতরণ করলেন ৷ সেখানে জনৈক পংগু ব্যক্তিকে দেখতে পেয়ে তাকে তার পংগুত্নের ব্যাপারুহৃ
জিজ্ঞাসা করলেন ৷ সে বলল, আমি এখনই তোমাকে একখানি হাদীস শুনাচ্ছিছু আমাহৃ
অনুরোধ , যতদিন তুমি শুনরে যে, আমি জীবিত রয়েছি, ততদিন তুমি তা কারো কাছে বত্তে
করবে না ৷ “রাসুলুল্লাহ (সা) তাবুকে একটি খেজুর গাছের কাছে অবতরণ করলেন এবৰু
বললেন, “এ দিকেই আমাদের কিবলা ৷ তারপর সে পাছটির দিকে মুখ করে দাড়িয়ে সালাত্
শুরু করলেন ৷ বচ্নািকারী বলেন, আমি যে দিকে দ্রুত এগিয়ে আসছিলাম ৷ তখন আমি উচ্ছভ্রু
তরুণ ৷ আমি রাসুল (না) ও জর খেজুর গাছের মাঝ দিয়ে চলে থেললাে ৷ তিনি বললেন, হে
আমাদের সালাত কর্তন করেছে, আল্লাহ্ তার পদচারণা কর্তন করুন ৷” (বর্ণনাকারী বলেন, সে
দিন থেকে আজ পর্যন্ত আমি আর আমার এ পায়ে ভর দিয়ে র্দড়াড়াতে পারি না ৷) তারপর আৰু
দাউদ (র) সাঈদ ইবন অড়াযীয অড়াত্-তড়ানুথী (র)ইয়ড়াযীদ ইবন নামিরান (বা ) থেকে অৰুরুণ্
রিওয়ায়াত করেছেন ৷ ইয়াষীদ (র) বলেনঃ, তাবুকে আমি এক পংগুকে দেখলাম ৷ (স রলল
আমি একটি মাধ্যম আরােহী হয়ে রাসুলুল্লাহ (সা) এর সম্মুখ থেকে পথ অতিক্রম করলাম
তিনি তখন সড়ালড়াত আদায় করছিলেন ৷ তিনি বললেন, ইয়া আল্লাহ্৷ তার পদচারণা রহিত কভ্রুন্
দিন ৷ তারপর থেকে আমি আর পা দিয়ে হাটতে পারি না ৷ অন্য এক বিওয়ফ্লোতে রয়েছে “৫:
আমাদের সল্যেত কর্তন করেছে, আল্লাহ; তার পদচারণা কর্তন করুন ৷ ”

মুআবিয়া ইবন আবু মুআবিয়া (বা) — এর জানাযা প্রসংণ

বায়হাকী (র) ইয়াঘীদ ইবন হারুন (র)আনাস ইবন মালিক (বা ) সুত্রে বলেন, আমহ
রড়াসুলুল্লাহ (না)-এর সাথে তাবুকে অবস্থান করছিলাম ৷ সুর্য পরিচ্ছন্ন ঔজ্জ্বল্য নিয়ে উদিত হল

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.